1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভাদাইমা’ খ্যাত কৌতুক অভিনেতা আহসান আলী (৫০) মারা গেছেন সুনামগঞ্জে যুবলীগের উদ্যোগে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরন চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে মোটর ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কোর্সের শুভ উদ্বোধন সভাপতি পদে হেরে শিক্ষকসহ দুই জনকে মারধর দুর্গাপুরে নেতাই নদীতে নিখোঁজ যুবকের ২৪ ঘন্টা পর লাশ উদ্ধার টেকনাফের নয়াপাড়া সদর ২,০০০ পিস ইয়াবাসহ তিনজন গ্রেফতার। শিক্ষকের মারের চোটে হাসপাতালে শিক্ষার্থী রংপুর মেডিকেলে প্রথম বারের মত এন্ডোস্কপিক ব্রেইন টিউমার অস্ত্রোপচার সম্পন্ন নাঙ্গলকোটে শাহ্ আলী সুপার বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে, প্রাণ গেল মাছ ব্যবসায়ীর

ইউএনও’র স্ত্রীর গাড়ি চাপায় নিহত সাংবাদিক সোহেল আহমেদ জীবনের দাফন সম্পন্ন

লাল সবুজের দেশ রিপোর্ট ঃ

ঢাকা, সোমবার, ৯ মে ২০২২: নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বউযের গাড়ির ধাক্কায় সিংড়ার সাংবাদিক সোহেল আহমেদ জীবনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জানাযা নামাজে স্থানীয় সিংড়া উপজেলা নিবর্বাহী অফিসার, পৌর মেযর, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেনীপেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ৯ মে সকাল ১০ টার দিকে নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুখময় রায়ের স্ত্রী মানসি দত্ত মৌমিতার গাড়ি মুখোমুখি ধাক্কায় সাংবাদিক সোহেলের মোটর সাইকেলটি জীপের মধ্যে ঢুকে যায়। গুরুত্বর আহতবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (রামেক) নিয়ে যাওয়ার পথে দুপুর ১ টার দিকে প্রাণ হারান সাংবাদিক জীবন।

সোহেল আহমেদ জীবন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ও সিংড়া প্রেসক্লাবের সদস্য ছিলেন। তিনি সকাল সাড়ে ১০ টায় পেশাগত কাজে যাওয়ার পথে সিংড়ার নিংঙ্গইন তেল পাম্প সংলগ্ন ৯০ স্পিডে থাকা জীপ গাড়ির সাথে দূর্ঘটনার শিকার হন। এসময় তার মোটর সাইকেলটি ধুমড়ে মুচড়ে জীপের নীচে চলে যায়।

সন্ধ্যার পর সোহেলের মরদেহ বাড়িতে নিয়ে আসলে সেখানে হৃদয়বিধারক দৃশ্যে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। তাঁর এই অকাল মৃত্যতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আহমেদ আবু জাফর তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন ইউএনওর অর্ধাঙ্গীনি ও ড্রাইভার নাকি নেশামগ্ন ছিলেন। তিনি এটিকে স্রেফ হত্যা আইনে বিচারের দাবি করেন বরং এটাকে দূর্ঘটনা বলার সুযোগ নেই বলেন। ঘটনার ক্লু উদঘাটনে ড্রাইভারসহ স্ত্রীর ডোপ টেষ্ট করার দাবি করেন। এলাকাবাসী অভিযোগ করেন কোন প্রটোকলে সরকারী গাড়ী ব্যবহার করতেন ইউএনওর স্ত্রী এবং কিভাবে নিজ উপজেলার বাইরে নিয়ে যেতেন। স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে স্ত্রী একটি কলেজে সবসময়ই চাকরীতে যেতেন স্বামীর গাড়িতে চড়ে।

এদিকে স্থানীয় বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনসহ বিএমএসএফের পক্ষ থেকে সুস্ঠু তদন্তের করে হত্যাকান্ডের বিচারের দাবি করেছেন।