“অসহায় মায়ের পাশে গাজিপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ “

গাজিপুর সংবাদদাতা ঃ গর্ভবতী কেয়া খাতুন, স্বামী -মোঃ শরীফ গত ২১-৪-২০২০ তারিখে সেন্ট্রাল মেডিকেল হাসপাতাল, কোনাবাড়িতে জরুরী অবস্থায় ভর্তি হন। ওইদিন ই সিজারের মাধ্যমে কেয়া খাতুনের কোল জুড়ে আসে ফুটফুটে ছেলে সন্তান এবং ১১দিনে হাসপাতালের বিল আসে ৪৭০০০/(সাতচল্লিশ হাজার) টাকা। কিন্তু দারিদ্রের নির্মম পরিহাসে কেয়া খাতুন ও স্বামী শরীফ হাসপাতালের বিল দিতে না পারায় অন্যের কাছে নিজের সন্তান কে ২৫০০০/(পচিশ হাজার) টাকায় বিক্রি করে দিতে বাধ্য হয় এবং সেই সন্তান বিক্রির টাকা দিয়ে হাসপাতালের বিল পরিশোধ করে মা তার নাড়িছেড়া ধনকে ছাড়াই আজ ০১/০৫/২০২০ তারিখে নিজ বাড়ি এনায়েতপুর, কাশিমপুরে চলে যান। পরবর্তীতে বিষয়টি এডিশনাল আইজি (এসবি) এর মাধ্যমে গাজিপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার এর নজরে আসলে তিনি দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেন। পুলিশ কমিশনার নিজেই হাসপাতালের বিল পরিশোধের মাধ্যমে নবজাতক শিশুকে তার মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেন, একটি সন্তানের জন্য যা পৃথিবীর সবথেকে নিরাপদ আশ্রয়স্থল। মায়ের কোলে তার সন্তানকে ফিরিয়ে দিয়ে মানবতার এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। মা যেন তার নিজের সন্তানকে কাছে পেয়ে তার মাতৃতের সাধকে পূরন করেছে। মা এবং ছেলে এখন সুস্থ আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.