1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৬:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন খাঁটি দেশপ্রেমিক এবং পরিপূর্ণ বাঙালি : ড.কলিমউল্লাহ রামু চেইন্দা এলাকায় ২০,০০০ পিস ইয়াবাসহ একজন’কে গ্রেফতার। ভৈরবে র‍্যাবের পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল সহ ৭জন গ্রফতার বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যশোর জেলা সংসদের একাবিংশ সম্মেলন জীবননগর থানা পুলিশের হাতে ফেন্সিডিলসহ আটক ১ বোনারপাড়ায় রেল কর্মকর্তাদের লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে বামনডাঙ্গা রেল শ্রমিকের বিক্ষোভ সমাবেশ যশোরে চোরাই মোবাইলসহ গ্রেফতার ২ পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু সোনাগাজীতে “স্মৃতি চির অম্লান” বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করেন- লিপটন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন ও বাংলার বিশ্বব্যাপ্তি : ড.কলিমউল্লাহ

কোভিট ১৯ ও প্রিয় রবের আশীর্বাদঃ

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১০ মে, ২০২০
  • ১০৪ বার

 করোনা অভিশাপ না হয়ে কিছুটা আশির্বাদ হিসাবে বোধহয় এসেছে! মানবিক আচরণের প্রতি মানুষের সচেতনতাবোধ তাই মনে করিয়ে দেয়। এই সমাজ তথা বিশ্বের তথ্য যতটুকু মিডিয়া কাভারেজের মধ্যে পাচ্ছি তাতে মনে হয় এখন আমরা অনেক বেশি মানবিক। মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা এমন কি প্রানীকূলের প্রতি, পরিবেশের প্রতি সত্যি অসাধারণ। আমাদের দেশের নাগরিকগন আইন মেনে চলতে অভ্যস্ত নন, সুবিধা অনুযায়ী আমরা ব্যবহার করি, আর ন্যায় বিচার তো নির্দিষ্ট কিছু শ্রেণীর জন্য এবং তাদের মর্জি মতো, তবুও মাঝেমাঝে ব্যতিক্রম  দেখা যায় সেটা দ্রুবতারা রুপে কপাল গুনে প্রাপ্য। কিন্তু কিছু সময়ের প্রহরে যেন এই বিষয়গুলো নায্যতার আবেগে উদ্বেলিত! 
আজ করোনা সংকটকালে নাগরিকগন যেভাবে একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছে সত্যি অনন্য ইতিহাস হবে। এখনো অনেক মানুষ অভুক্ত, দৈনন্দিন আয়ের সংসারের উনুনে তেল নুন লাকড়ির অভাব সত্যি- কিন্তু নিম্নবিত্তের কিছু মানুষ এমন কি নিম্ন মধ্যবিত্তের ও অনেক পরিবার যারা সাধারণ মানুষের আয় থেকে ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে যে সহযোগিতা পাচ্ছেন সেটা সত্যি আমাদের মানবিক আচরণের প্রকাশ করে এবং আমাদের হ্রদয়ের নান্দনিকতার যে আনন্দ তা পেতে সহায় হয়। যে মানবিক আচরণ টি ১৪০০ বছর আগে শিখিয়ে গিয়েছিলেন পৃথিবীর সকল কালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহাপুরুষ হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)………….”যে ব্যক্তি কোনো মুমিনের দুনিয়াবি সংকটগুলো থেকে একটি সংকট মোচন করে দেয়, আল্লাহ সুবহানাহু তাআলা তার আখিরাতের সংকটগুলোর একটি সংকট মোচন করবেন। যে ব্যক্তি কোনো অভাবগ্রস্তের অভাব মোচনে সাহায্য করবে,আল্লাহ সুবহানাহু  তাআলাও তাকে দুনিয়া ও আখিরাতে স্বাচ্ছন্দ্য দান করবেন।যে ব্যক্তি কোনো মুসলিমের দোষ-গুণ গোপন করবে, আল্লাহ সুবহানাহু তাআলা দুনিয়া ও আখিরাতে তার দোষ গোপন করবেন। আল্লাহ বান্দার সাহায্যে থাকেন, যতক্ষণ বান্দা তার ভাইয়ের সাহায্যে নিয়োজিত থাকে।” [মুসলিম : হাদিস- ২৬৯৯]
মানবিক সমাজ বিনির্মানে প্রিয় কথা গুলোর ভূমিকা কখনো শেষ হবে না, আজকের এই সময়ে এসে আমরা দেখেছি সমাজিক অস্থিরতা হঠাৎ করে কমে গেছে, মানুষের আচরণের মধ্যে একধরনের সুস্থতা বিরাজ করছে, এই ধারা কতদিন থাকবে সেটা বড় না, এই মুহূর্তে  সকল সন্ত্রাস, খুন, রাহাজানি, চুরি, ডাকাতি, দূর্নীতি, ঘুষ, দর্ষণ, মিথ্যাবাদিতা, ন্যায় বিচারহীনতা থেকে কিছুটা মুক্ত আছি আমরা, আছে প্রকৃতিতে মুক্তমনা প্রানীকুলের অবাদ বিচরণ, জলবায়ুর পরিবর্তন জনিত হুমকিতে ব্যস্ত সম্মেলন কারীরা দেখছেন নির্মল বায়ু, কার্বন নিঃসরণ কমে বায়ুমন্ডলের সুস্থতা, হিমালয়ের বরফগলা কমে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্ছতা নেমে যাচ্ছে, বিশ্ব সন্ত্রাসবাদীরা আজ কোন এক অজানা ভয়ে তটস্থ, গোলা বারুদের বিদীর্ণ আওয়াজ এখন শোনা যাচ্ছে না, সবাই যার যার স্রষ্ঠাকে খুঁজে। এমন পরিবেশ করোনামুক্ত পৃথিবী পরিলক্ষিত করবে কিনা জানি না, তবে এখন তো পরিলক্ষিত হচ্ছে, এখন তো আমরা মানবিকতার চরম শিখরে।
আমি বা আমরা নিজের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় থাকি এই সমাজে। এখানে শুদ্ধাচার করতে গেলে, অন্যায় নিয়ে কথা বলতে গেলে, সত্য প্রকাশ করতে গেলে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কোন না কোন জামেলা পোহাতে হয় সেটার ভুক্তভোগী একা হবে না, হয়তো পরিবার, বন্ধু, আত্মীয় স্বজন। আমাদের রাজধানীতে জীবনের নিরাপত্তা যেন পুটিমাছ টাইপের, কখন কে কাওরে তুচ্ছ কারনে মেরে বসে তার ইয়াত্তা নেই, আর এখানে এগুলোতে জড়িতরা কোন ধরনের চর্চা ছাড়া রাজনীতির নেতা পরিচয় দিতে ভালোবাসে। 
সরকারী ত্রান নিয়ে তো কান্ডকারখানা হয়েছে অনেক, সরকার চেষ্টা করছে সমস্যা সমাধানের কিন্ত আর্থিক সামর্থ যে বড় ব্যাপার। তবে সরকারের বাহবা নেওয়ার মতো কিছু ঘটে নি, জনগনের টাকা জনগনের কাছে সুষ্ঠু ও সুষম বন্টন করার প্রয়াসে যে দুর্বলতা দেখা যায় তা নিশ্চয় সুশাসনের বিরুদ্ধে। বরং মাঝে মাঝে মিথ্যা গল্পগুলো হয়ে উঠে রুপকথার অমানবিক গল্প। মিথ্যা ধ্রুমজাল তৈরী করে সাময়িক নিজেকে লুক্কায়িত করা গেলে ও মিথ্যা পরাভূত হয় অনন্ত কালের পথে। তাই তো John Keats বলেছিলেন, “Beauty is Truth, Truth Beauty” 
আশার আলো হচ্ছে সমাজে কিছু মানুষ দূর্দান্ত লড়ছে তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্বশীলতা থেকে নিজেকে উজাড় করে সর্বোচ্ছ দেওয়ার চেষ্টা করছে। এমন কিছু মানুষকে আমি জানি, বহুদূরের কেউ না, তাঁরা আমার পরিবারের, সমাজের কেউ একজন। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির সাহেবের কথা, ব্যক্তিগত উদ্যোগে মধ্যবিত্ত ও নিন্মবিত্তের কাছে খাওয়ার পোঁছে দেওয়া এবং শহরের জীবজন্তুর প্রতি অকৃত্রিম যে ভালোবাসা দেখিয়েছেন তা সত্যি কল্পনাতীত। আবার কাতার দূতাবাসের কর্মকর্তা ডঃ মুস্তাফিজুর রহমান জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রবাসী শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানো, সচেতনতা বৃদ্ধি ও খাওয়ার পোঁছানো এবং দেশে থাকা তাদের পরিবারের কাছে ও সাহায্য সামুগ্রী পোঁছানোর যে নান্দনিক উদাহরন সত্যি গল্পে গল্পে না বললে অতুক্তি থেকে যাবে। এদিকে বি. জে. শামসুল আলম চৌধুরী স্যারেরা কত গুলো সুহ্রদ ডাক্তারের সহায়তায় করোনা কালীন সংকটে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার জন্য কাজ করেন Virtual Patient Care Centre (VPCC) এর মাধ্যমে, হালিমা স্নিগ্ধারা করোনা জয়ী হয়ে সাহস দেখান, উপায় বাতলে দেন কিভাবে যত্নবান হয়ে আত্মবিশ্বাস নিয়ে এই রোগ মোকাবিলা করে সুস্থতার সাথে প্রিয়জনের হাত ধরতে হয়। ডাক্তার মঈন উদ্দীনেরা শেখান কিভাবে সেবা করতে করতে আত্মদান করা লাগে।  বিদ্যানন্দের কতোগুলো আনন্দদায়ক কর্ম , মানবতার তরী নামক সংগঠনের একদল মানুষের সহায়তা কর্মযজ্ঞ এছাড়া নাম না জানা হাজারো ব্যক্তি সংগঠনের সহায়তার হাত ভোরের আকাশে এ যেন তেজোদ্রীপ্ত মানবিক আলো ছড়াচ্ছে।Martin Luther King Jr. বলেছিলেন “Life’s most persistent and urgent question is, ‘What are you doing for others?”
চিকিৎসা সেবার নাজুকতা নিয়ে কতো গল্প, বিশ্বাস করতে কষ্ট লাগে আমাদের কর্তাব্যক্তিগন এই ব্যাপারে আমড়া গাছের ঢেকির মতো হয়ে ছিলেন।কেউ বলেন বাসায় থাকেন হাসপাতালে চিকিৎসা নেই, আবার কেউ বা মানবিক হয়ে হাসপাতাল ও চিকিৎসা সেবা গড়ে তুলেছেন।  আবার কোন কোন ডাক্তার করোনার ভয়ে চিকিৎসার সেবা দিতে চাচ্ছেন না, আবার কেউ সেবার দেয়ার মানসে পোস্টিং চেঞ্জ করে ঝুঁকি নিচ্ছেন। এমন উদারতার চেহারা আমাদের সমাজ বাস্তবতার সকল নেগেটিভ কার্যক্রমের উপর চপেটাঘাত হয়ে একটা মানবিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে বৈকি। আমার প্রিয় রবের ঘোষনা, “তোমরাই সর্বোত্তম জাতি (মুসলিম) , তোমাদের উদ্ভব ঘটেছে মানুষের কল্যানের জন্য, তোমরা সৎকাজের আদেশ করো ও অসৎ কাজ করতে বারণ করো। (সূরা আলে ইমরান : আয়াত ১১০)। পবিত্র বাণীর শপথ যদি আমাদের মর্যাদা প্রকাশ করে মানবীয় আচরণের উত্তম প্রয়োগের কারনে, তাহলে আমরা এতো কাল কেন ভূলেছিলাম। আমি আগে বলেছি পরবর্তী সময়ে কি হবে জানি না এখন আমরা উষ্ণ হ্রদয়ে খিলখিল করে মানবিক ঝর্ণাতে সুখ প্রসবন করছি, এটা অনন্তকালের পথে ধাবমান হোক।
এ.আর রহমান ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..