মনোহরগঞ্জে বাইশগাঁও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ সভাপতির উপর হামলা, থানায় অভিযোগ দায়ের।

জামাল উদ্দিন স্বপন
আজ মনোহরগঞ্জ উপজেলার দূর্গাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কৃষি অফিসের উদ্যোগে আয়োজিত ভাসমান বেড প্রকল্পের মাঠ দিবসের অনুষ্ঠান শেষ হবার পর কৃষকদের তালিকায় স্থানীয় কয়েকজনের নাম না দেওয়ায় কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগ দপ্তর সম্পাদক শহিদুল্লাহর ছেলে বাইশগাঁও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আবু আইউব সৈকত এর উপর স্থানীয় কিছু দুস্কৃতিকারী অতর্কিত হামলা করে। এতে সৈকত মারাত্নক আহত হয়। পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এই ঘটনায় সৈকত এর বাবা শহীদ উল্লাহ বাদী হয়ে মনোহরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। আহত সৈকত জানায়, যখন আমার বাবা শহীদ উল্লাহ ও কৃষি অফিসে কর্মরত জামানুল হকের সাথে স্থানীয় কয়েকজনের নাম না দেওয়ায় কথাকাটাকাটি হয় এবং আমার বাবার সাথে কয়েকজন খারাপ ব্যবহার করে। তখন আমি প্রতিবাদ করি। আমি বলেছি, নাম তো আগেই তালিকা হয়ে গেছে। এখন নতুন কোন নাম দেওয়া যাবে না। আপনারা এভাবে খারাপ ব্যবহার করছেন কেন। পরে আমাদের গ্রামের হৃদয়সহ কয়েকজন আমার উপর হামলা চালায় এবং আমাকে মারধর করে। উপজেলা কৃষি অফিসার সুজন চন্দ্র জানান, আমাদের অনুষ্ঠান শেষে মারামারির ঘটনা ঘটে। আমি উপজেলায় আসার পর ঘটনাস্থলে থাকা আমাদের দুইজন উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তার কাছে শুনেছি স্থানীয় কৃষক শহীদ উল্লাহর ছেলের উপর দুস্কৃতিকারীরা হামলা চালিয়েছে। অনুষ্ঠান চলাকালীন কারো নাম নতুন করে দেওয়া যায় না। নামের তালিকা আগে করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.