1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০১:২২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু পরম হিতৈষী মানব ছিলেন: ড.কলিমউল্লাহ ছাতকে লাফার্জহোলসিম এর ত্রান বিতরণঃ অন্যান্যদেরও এগিয়ে আসার আহবান জানালেন স্থানীয় এমপি ভৈরবে বিভিন্ন দল থেকে দুই হাজার লোকের আওয়ামীলীগে যোগদান বন্যার্তদের সহযোগিতার জন্য যশোর জেলা বিএনপির অর্থ সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু বঙ্গবন্ধু সারাটি জীবন মনুষ্য সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন: ড.কলিমউল্লাহ ভৈরবে এক হাজার পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ছাতক পিডিবির কর্মকতা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে মিটার চুরি ও ঘুষ দুর্নীতির অভিযোগ দুর্গাপুরে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা তুলে দিয়ে ১০০ টাকা রেখে দিচ্ছেন বিকাশ দোকানি রংপুরে তরুণীকে ধর্ষণ, ১৫ বছর পর ৩ জনের যাবজ্জীবন ফেনীর সোনাগাজীতে মোশারফ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ।

নাসিরনগরে পানি নিস্কাশনের নালা বন্ধ করায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি।

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ জুন, ২০২০
  • ১৬০ বার

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া),ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের পাঠানিশা গ্রামের প্রায় ২ শত বছরের প্রাচীন পুকুরের পানি নিস্কাশনের নালা বন্ধ করায় ভারী বর্ষণের কারণে উঠানে গিয়ে পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় কয়েক পরিবার বাড়ী ছাড়া। তাছাড়াও জলাবদ্ধতার কারণে ব্যাপক ফসলহানীর ঘটনা ঘটেছে। সরেজমিন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে এমনই চিত্র। এই বিষয়ে গ্রামের প্রায় অর্ধ শতাধিক লোক মিলে জলাবদ্ধতা থেকে পরিত্রাণ পেতে ১৮ জুন ২০২০ নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর এক লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে জানা গেছে, পাঠানিশা মৌজার প্রায় ৫ একর জায়গার উপরে নির্মিত ২ শত বছরের পুরাতন পুকুরের পানি নিস্কাশনের সরকারী নালার উপর কালভার্ট থাকলেও গ্রামের দুস মাহমুদ খানের ছেলে জোহাম খান, মিজান খান, মোনায়েম খান, লিটন মাস্টার, মোবারক ডাক্তার, কুমুদ বন্ধু রায়, মোশারফ মিয়া মিলে রাত্রের অন্ধকারে ড্রেজার দিয়ে মাটি ফেলে নালাটি বন্ধ করে দেয়। তাতে অতিরিক্ত পানি জমে ইদন মিয়ার ছেলে মফিজ মিয়া, ফারুক মিয়ার ছেলে রফিক মিয়া সহ তিনটি পরিবারের ঘর দরজা পানির নীচে তলিয়া যায়। বর্তমানে তারা জলাবদ্ধতার কারণে বাড়ী ছাড়া রয়েছে। তাছাড়াও পুকুরের চার পাড়ের অনেক ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। তলিয়ে গেছে বিভিন্ন ফসলের ও বজি বাগান এবং ফুল-ফলাদির গাছ যেমন- আম, জাম, কাঠাল, পেঁপেঁ, কলার বাগানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বর্তমানে পানিতে দুগর্ন্ধের কারণে চর্তুরপাশে লোকজন বসবাস করতে পারছে না। এ বিষয়ে জোহাম খানের সাথে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের মালিকানা জায়গা আমরা ভরাট করেছি। ভোক্তভোগী দানা মাস্টার, বসু মিয়া, নরেশ দত্ত, যোতিশ দেব, হরি চন্দ্র দেব সহ সকল অভিযোগকারীরা জানান, প্রায় ২ শত বছরের পুরাতন নালাটি তারা জোরপূর্বক মাটি ফেলে ভরাট করার কারণে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি দ্রæত সমাধানের জন্য ভুক্তভোগীরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..