1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন খাঁটি দেশপ্রেমিক এবং পরিপূর্ণ বাঙালি : ড.কলিমউল্লাহ রামু চেইন্দা এলাকায় ২০,০০০ পিস ইয়াবাসহ একজন’কে গ্রেফতার। ভৈরবে র‍্যাবের পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল সহ ৭জন গ্রফতার বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যশোর জেলা সংসদের একাবিংশ সম্মেলন জীবননগর থানা পুলিশের হাতে ফেন্সিডিলসহ আটক ১ বোনারপাড়ায় রেল কর্মকর্তাদের লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে বামনডাঙ্গা রেল শ্রমিকের বিক্ষোভ সমাবেশ যশোরে চোরাই মোবাইলসহ গ্রেফতার ২ পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু সোনাগাজীতে “স্মৃতি চির অম্লান” বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করেন- লিপটন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন ও বাংলার বিশ্বব্যাপ্তি : ড.কলিমউল্লাহ

ফেনীতে ইউএনও সহ নতুন আক্রান্ত ১৮ জন।

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ জুন, ২০২০
  • ৯৫ বার

ফেনী প্রতিনিধি:-

ফেনীতে একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও তাঁর স্ত্রী, একজন চিকিৎসক, একজন পুলিশ সদস্যসহ নতুন করে আরও ১৮ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৭১ জনে। এর মধ্যে ১৪ জন মারা গেছে। সুস্থ্য হয়েছেন ১৯৩ জন। করোনা আক্রান্ত ফেনীর সিভিল সার্জন মো. সাজ্জাদ হোসেনসহ ১৭ জনকে অন্যত্র স্থানান্তর করা হয়েছে।

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত ৪০ জন ফেনী জেনারেল হাসপাতাল ও দাগনভ‚ঁঞা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন এবং অন্যরা স্বাস্থ্য বিভাগের অধীনে হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ফেনীর ভারপ্রাপ্ত সিভিল এসএম মাসুদ রানা গতকাল বুধবার দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। নতুন আক্রান্ত ১৮ জনের মধ্যে ফেনী সদর উপজেলার একজন চিকিৎসক, একজন পুলিশ সদস্যসহ ৮ জন, দাগনভ‚ঁঞা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রবিউল হাসান ও তাঁর স্ত্রীসহ ৫ জন, সোনাগাজী উপজেলায় একজন, ছাগলনাইয়া উপজেলায় একজন এবং চট্টগ্রামের জোরারগঞ্জ থানার দুইজন রয়েছে।

জেলায় ৬৭১ জন করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ফেনী সদর উপজেলায় ২৬০ জন, দাগনভ‚ঁঞায় ১৩৯ জন, ছাগলনাইয়ায় ৯০ জন, সোনাগাজীতে ১০৫ জন করে, পরশুরাম ৩১ ও ফুলগাজীতে ৩৫ জন। পাশের চট্টগ্রাম, মিরসরাই, চৌদ্দগ্রাম ও সেনবাগের ১১ জন।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, গত ১৬ এপ্রিল জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের পশ্চিম মধুগ্রামে প্রথম এক যুবক করোনা আক্রান্ত হন। তিনি ঢাকার মোহাম্মদপুর এলকায় একটি মুঠোফোনের সেন্টারে চাকুরী করতেন।
গত দুই মাসে জেলায় ৪ হাজার ৫৫০ জনের সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রামের ফৌজদার হাট বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজ (বিআইটিআইডি), চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় এবং নোয়াখালী আবদুল মালেক মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। গতকাল বুধবার পর্যন্ত ৩ হাজার ৩৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া গেছে।

ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন এসএম মাসুদ রানা জানায়, করোনা সংক্রমন ঠেকাতে জেলার তিন
উপজেলায় ৮টি এলাকায় গত ১৩ দিন থেকে লকডাউন চলছে। তিনি বলেন, ঈদের সময় বিভিন্ন জেলা থেকে অনেক লোক বাড়ী এসে অবাধে চলাফেরা করেছে। এতে সংক্রমন বেড়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..