1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৬:২৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাবনা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনের অযৌক্তিক ভাড়া নির্ধারণের প্রতিবাদে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঊনপঞ্চাশটি মোবাইল ফোনসহ পোনে এক লক্ষ টাকা উদ্ধার চুয়াডাঙ্গায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এর ৯২তম জন্মদিন উপলক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পন সহকারী অধ্যাপক হিসাবে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিচ্ছে বশেমুরবিপ্রবি শিবচরে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে শেখ কামাল’র জন্মবার্ষিকী পালিত বরগুনার তালতলীতে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন রংপুর চিড়িয়াখানায় জলহস্তি নুপুর ও কালাপাহাড় জুটির প্রথমবার বাচ্চা প্রসব রংপুরে অনুমোদনহীন ঔষধ কারখানায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ঔষধ জব্দসহ অর্থদন্ড পাবনা ফরিদপুরে সন্ত্রাসীদের গ্রামবাসীর গণপিটুনি পাবনা সুজানগরে ডিবি পরিচয়ে কসাই থেকে ২৫ কেজি মাংস নিয়ে পলাতক আসামী গ্রেপ্তার

কেশবপুরে বুড়িভদ্রা নদীর পাড়ে বিধবা পরিবারের বসবাস

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০
  • ১০৭ বার

 

মোঃ রাকিবুল হাসান সুমন, যশোর কেশবপুর প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। বহু নদ-নদীর পাড়ে ভূমিহীনরা দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছে ৷ তারই ধারাবাহিকতায় কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামের উপর দিয়ে বুড়িভদ্রা নদী বয়ে গেছে ৷ নদীর পাড়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছেন আরতী বিশ্বাস ৷ মহামারী করোনার সময় কালে মানবিক জীবনযাপন করে আসছে তিনি ৷ গতবছর ২০১৯ সালের মার্চ মাসে স্বামী হারিয়েছে। তার স্বামী পেশায় একজন মাঝি ছিলেন। বর্তমানে স্বামীহারা বিধবা মা দুই পুত্রসন্তানকে নিয়ে অসহায় ভাবে জীবনযাপন করছেন ৷

কেশবপুর উপজেলার মঙ্গল কোট ইউনিয়নের পাঁচারই প্রথমিক বিদ্যালয়ের পাশে বুড়িভদ্রা নদীর পাশে ছোট্র একটা ঘর। একটি ঘরে দুই ছেলে নিয়ে বসবাস তার। নিজের জমি বলতে কিছু নায় তাদের। বড় ছেলে তিতুমীর কলেজ থেকে পাশ করে ঢাকার একটি প্রাইভেট স্কুলে চাকরি করতে । করোনার কারনে ঢাকা থেকে ফিরে এসেছেন তিনি। ছোট ছেলে অন্যের জমিতে জন কৃষি ডিপ্লোমা পড়ছেন। করোনা, অতি বৃষ্টিতে কাজ নেয়।

সরেজমিন গিয়ে আরতী বিশ্বাসের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিককে জানান, স্বামীর সাথে বিগত ত্রিশ বছর যাবৎ নদীর পাড়ে বসবাস করে আসছি । স্বামীর অনেক স্মৃতি বিজড়িত এই কাঁচা ঘরটিরর মাঝে। নিজস্ব বলে আমাদের কোন জমি নেই? দীর্ঘদিন ধরে আমরা এই সরকারি জমির উপরে বসবাস করে আসছি ৷ দুই ছেলে নিয়ে অভাব অনটনের মধ্য দিয়ে জীবন যাপন করছি ৷ শত কষ্টের মাঝে থেকেও ছেলেদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলেছই ৷ সরকারি অনুদান বলতে দশ টাকার চালের কার্ড আছে। মাঝে মধ্যে ৫নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যাক্তিগত ভাবে সাহায্য করেন ৷ ভূমিহীন হিসেবে এক টুকরো জমি পেতে সরকারের কাছে আকুল দাবী করেছেন ৷

মোঃ রাকিবুল হাসান সুমন, যশোর কেশবপুর প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। বহু নদ-নদীর পাড়ে ভূমিহীনরা দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছে ৷ তারই ধারাবাহিকতায় কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামের উপর দিয়ে বুড়িভদ্রা নদী বয়ে গেছে ৷ নদীর পাড়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছেন আরতী বিশ্বাস ৷ মহামারী করোনার সময় কালে মানবিক জীবনযাপন করে আসছে তিনি ৷ গতবছর ২০১৯ সালের মার্চ মাসে স্বামী হারিয়েছে। তার স্বামী পেশায় একজন মাঝি ছিলেন। বর্তমানে স্বামীহারা বিধবা মা দুই পুত্রসন্তানকে নিয়ে অসহায় ভাবে জীবনযাপন করছেন ৷

কেশবপুর উপজেলার মঙ্গল কোট ইউনিয়নের পাঁচারই প্রথমিক বিদ্যালয়ের পাশে বুড়িভদ্রা নদীর পাশে ছোট্র একটা ঘর। একটি ঘরে দুই ছেলে নিয়ে বসবাস তার। নিজের জমি বলতে কিছু নায় তাদের। বড় ছেলে তিতুমীর কলেজ থেকে পাশ করে ঢাকার একটি প্রাইভেট স্কুলে চাকরি করতে । করোনার কারনে ঢাকা থেকে ফিরে এসেছেন তিনি। ছোট ছেলে অন্যের জমিতে জন কৃষি ডিপ্লোমা পড়ছেন। করোনা, অতি বৃষ্টিতে কাজ নেয়।

সরেজমিন গিয়ে আরতী বিশ্বাসের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিককে জানান, স্বামীর সাথে বিগত ত্রিশ বছর যাবৎ নদীর পাড়ে বসবাস করে আসছি । স্বামীর অনেক স্মৃতি বিজড়িত এই কাঁচা ঘরটিরর মাঝে। নিজস্ব বলে আমাদের কোন জমি নেই? দীর্ঘদিন ধরে আমরা এই সরকারি জমির উপরে বসবাস করে আসছি ৷ দুই ছেলে নিয়ে অভাব অনটনের মধ্য দিয়ে জীবন যাপন করছি ৷ শত কষ্টের মাঝে থেকেও ছেলেদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলেছই ৷ সরকারি অনুদান বলতে দশ টাকার চালের কার্ড আছে। মাঝে মধ্যে ৫নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যাক্তিগত ভাবে সাহায্য করেন ৷ ভূমিহীন হিসেবে এক টুকরো জমি পেতে সরকারের কাছে আকুল দাবী করেছেন ৷

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..