1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahmed : Sohel Ahmed
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিক্ষাকে বাণিজ্যিক পণ্য বানাবেন না: রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ আলো থেকে আর অন্ধকারে ফিরে যাবে না – ওবায়দুল কাদের শেরপুরে ক্ষেতজুরে সূর্যমুখী ফুল গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় প্রতিবেশির জায়গা দখল করে বসতবাড়ি নির্মান করছে প্রভাবশালীরা বিশ্বনাথে উপজেলা আ’লীগের ভালবাসায় সিক্ত ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র রফিক হাসান সাংবাদিক আলমগীর নূরকে অপহরণ,হত্যা প্রচেষ্টা; সন্ত্রাসী ও গডফাদারদের গ্রেপ্তার দাবী সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর প্রতিবাদে কালিগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত বাগেরহাট মোরেলগঞ্জে সন্ধ্যার পর পরই বাঘের গর্জন-গর্জনে আতঙ্কিত এলাকাবাসী পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ১২ বছরেও সংস্কার হয়নি ব্রিজ, ঝুঁকি নিয়ে হাজারো মানুষের পারাপার শিবপুরে সবুজ পাহাড় খেলাঘর আসরের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

কেশবপুরে শাপলা ফুল বিক্রি করে সংসার চালান ভ্যান চালক মদন

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০
  • ১২০ বার

জলিল, যশোর থেকে : যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন বিল ঘুরে ঘুরে শাপলা ফুল তুলে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন উপজেলার পাঁজিয়া ইউনিয়নের সাগর দত্তকাটি গ্রামের মৃত নারায়ন মন্ডলের পূত্র মদন মহন মন্ডল।

সারাদিন রোদ কিংবা মুষলধারে বৃষ্টি যাই হোক না কেন বিলে যেতেই হবে তাকে। শাপলা তুলতেই হবে। তা না হলে সংসার চলবে কি করে? বিলের শাপলাই তো তার অন্ন জোগাতে সিংগভাগ ভূমিকা রাখছে।

শাপলা নেবেন…. শাপলা….লাল সাদা তরতাজা শাপলা। এমন করে কেশবপুর শহরের পথে পথে শাপলা বিক্রেতার হাঁক শুনলেই কেশবপুর শহরের ছোট বড় সকলেই ছুটে আসেন তরতাজা শাপলা নিতে।

জাতীয় ফুল শাপলা শুধু সৌন্দয্যের প্রতীক নয়, সবজি হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়। কেশবপুর বাজারে শাপলা ফুল বিক্রেতাকে দেখে শুরু হল পিছু নেওয়া। তখন সকাল ১০ টা। বাজারে শাপলা বিক্রি শেষ । মদন মহন মন্ডল এর সাথে কথা । তিনি যাচ্ছেন বিলে । শাপলাফুল সংগ্রহ করবেন বলে। এবার তিনি কেশবপুরের ২৩মাইল ঢলিরপাড়া বিলে যাবেন। আমরাও তার সাথে গেলাম আমি আর দৈনিক প্রবাহের বার্তা সম্পাদক সুমন।

বিলের পাড়ে গেলেন একটি গামছা পরে নেমে গেলেন বিলে। পাঁচ ছয়টি শাপলার একএকটি আটি। পাঁচ থেকে আট টাকা বিক্রয় করনে তিনি বলে জানালেন। তিনি আরো জানান কেশবপুর টু পাঁজিয়া ভ্যান চালান তিনি। করোনার জন্য যাত্রী কম। সংসারে ৪ জন সদস্য। তাই সংসার চালাতে শাপলা বিক্রেতা তিনি। তিনি সরকারি অনুদান পান না। পেলে ভাল হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..