1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৯:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিএসএনপিএস কমিটি গঠন:সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাঃ সম্পাদক শামছুল আলম,সহ সাঃ সম্পাদক ছাবির উদ্দিন রাজু গাজীপুর ভবানীপুর এলাকার শামীম টেক্সটাইল মিলে তুলার গুদামে আগুন ‘জলবায়ু পরিবর্তনে ৭১ লাখ বাংলাদেশি বাস্তুচ্যুত’- ডব্লিউএইচও ভৈরবে আলোচিত তানজিনা হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী বিএমএসএফ প্রতিষ্ঠাতার কণ্যা জেরিন এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ লাভ বিএমএসএফ নিজস্ব গঠনতন্ত্রে পরিচালিত ট্রাস্টিনামা দলিলের অন্তর্ভুক্ত নয় -সাধারণ সভায় নেতৃবৃন্দ সামাজিক সংগঠন জাগ্রত সিক্সটিনের উপহার পেল পঙ্গু রহিম মিয়া অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ এর  ২২৬১ তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত রংপুরে কৃষকের মুখে হাসি ফুলকপির  ফলন ভালো  হওয়ায় যশোর সীমান্তে এক কিশোরের সাইকেলে পাওয়া গেল ১৫ পিচ স্বর্ণের বার

ডিমলায় মামলা করে বিপাকে পরে আসামীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বাদী

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৬ আগস্ট, ২০২০
  • ৭৬ বার

মোঃ রিপন ইসলাম শেখ, প্রতিনিধি, ডিমলা (নীলফামারী)ঃ ডিমলায় মামলা করে বিপাকে পরে আসামীদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মামলার বাদী। মামলাটির প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করে আসামীদের সাথে যোগসাযোসে আদালতে মনগড়া অভিযোগ পত্র দাখিল করেছে মামলার তদন্তকারী অফিসার। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে বাদী ন্যায় বিচার হতে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্খা করছে।

অভিযোগ জানা গেছে, নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলি গ্রামের (আশ্রয়ন কেন্দ্র) পবন চন্দ্র রায় এর পুত্র প্রভাত চন্দ্র রায় এর সাথে একই গ্রামের মৃত আবদার আলী পুত্র হবিবর রহমান (৫০), ও উত্তর ঝুনাগাছ চাপানী গ্রামের নবাব আলীর পুত্র নওশাদ আলী (৫০), এর সাথে দির্ঘদিন যাবত বিবাদ চলিয়া আসছিল।

গত ২৭ জানুয়ারী দুপুরে প্রভাত চন্দ্র রায় তার অসুস্থ্য বৃদ্ধ পিতা পবন চন্দ্র রায়কে নিয়ে চিকিৎসার জন্য স্বপরিবারে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে চাপানীর হাটস্থ বাসস্ট্যান্ডে পৌছা মাত্র উপরোক্ত দুই ব্যক্তিসহ দক্ষিন ডালিয়া গ্রামের মৃত রহিম উদ্দিন এর পুত্র আমিনুর রহমান (৫২), ও নওশাদ আলীর স্ত্রী হাওয়াবী বেগম (৪০), সহ আরো ১০/১২ জন তাদের পাল্লাভুক্ত দলবল মিলে ঘেড়াও করে মরপিট করতে করতে ঝুনাগাছ চাপানী ইউপি কার্যালয় এলাকার ফাঁকা স্থানে লইয়া গিয়া প্রভাত ও তার স্ত্রী অনিতা রানী রায় (৩৫) কে আটক করে বেধরক মারপিট করে।

এসময় প্রভাত চন্দ্র রায়কে জীবননাশের হুমকি দিয়ে ৩০০ টাকা মুল্যের ৩ টি নন-জুডিশিয়াল ফাঁকা স্টাম্পে জোরপূর্বক টিপ ও স্বাক্ষর গ্রহন করে। ঐ সময় প্রভাত চন্দ্র রায় এর বৃদ্ধ পিতার চিকিৎসার জন্য নেয়া ১ লক্ষ টাকা প্রভাত চন্দ্র রায়ের পকেট হইতে বাহির করিয়া লয়। ঘটনার শোর-চিৎকার শুনে বাজারের লোকজন ছুটে এসে প্রতিপক্ষের কবল হতে প্রভাত ও তার স্ত্রী অনিতা রানীকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঐ দিনেই জলঢাকা হাসপাতালে ভর্তি করান। পরবর্তিতে প্রভাত চন্দ্র রায় সুস্থ্য হয়ে নীলফামারী আদালতে ৪ জনকে আসামী করে মোকদ্দমা দাখিল করলে আদালত অভিযোগটি এফ, আই, আর হিসেবে গ্রহন করার জন্য ডিমলা থানার ওসি‘কে নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশক্রমে ডিমলা থানা কর্তৃপক্ষ গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ডিমলা থানার মামলা নং-১০, জিআর নং-২৭/২০২০, ধারা-১৪৩/৩৫৪/৪৪২/৩৮২/৩২৩/ ৩৮৫/৩৮৬ দঃ বিঃ রুজু করে মামলাটির তদন্তভার এসআই অনন্ত মোহন রায় এর উপর অর্পন করেন।

মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই অনন্ত মোহন রায় এর সাথে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সক্ষতা গড়ে উঠার কারনে আসামীদের না ধরে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করে উল্টো মামলার বাদী প্রভাত চন্দ্র রায় এর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবী করে মামলাটি মিমাংসা করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদান করে আসছিল। যাহার ফলে মামলার তদন্তকারী অফিসার ও আসামীদের ভয়ে মামলার বাদী প্রভাত চন্দ্র রায় পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। এরই সুযোগে উল্লেখিত অভিযুক্ত আসামীদের দ্বারা তদন্তকারী অফিসার এসআই অনন্ত মোহন রায় প্রভাবিত হয়ে এজাহার নামীয় ৪ জন আসামীর মধ্যে আমিনুর, হাওয়াবী বেগম এর নাম ও এজাহারে উল্লেখিত ৭ টি দঃ বিঃ ধারার মধ্যে ৫টি দঃ বিঃ ধারা বাদ দিয়ে গত ৩১ জুলাই নিজস্ব মনগড়া অভিযোগ পত্র বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করেন। এরকম মনগড়া অভিযোগ পত্র দাখিল করার কারনে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশংকা করছে মামলার বাদী প্রভাত চন্দ্র রায়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই অনন্ত মোহন রায় এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, বাদীর অভিযোগ সত্য নহে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..