1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৮:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিএসএনপিএস কমিটি গঠন:সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাঃ সম্পাদক শামছুল আলম,সহ সাঃ সম্পাদক ছাবির উদ্দিন রাজু গাজীপুর ভবানীপুর এলাকার শামীম টেক্সটাইল মিলে তুলার গুদামে আগুন ‘জলবায়ু পরিবর্তনে ৭১ লাখ বাংলাদেশি বাস্তুচ্যুত’- ডব্লিউএইচও ভৈরবে আলোচিত তানজিনা হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী বিএমএসএফ প্রতিষ্ঠাতার কণ্যা জেরিন এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ লাভ বিএমএসএফ নিজস্ব গঠনতন্ত্রে পরিচালিত ট্রাস্টিনামা দলিলের অন্তর্ভুক্ত নয় -সাধারণ সভায় নেতৃবৃন্দ সামাজিক সংগঠন জাগ্রত সিক্সটিনের উপহার পেল পঙ্গু রহিম মিয়া অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ এর  ২২৬১ তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত রংপুরে কৃষকের মুখে হাসি ফুলকপির  ফলন ভালো  হওয়ায় যশোর সীমান্তে এক কিশোরের সাইকেলে পাওয়া গেল ১৫ পিচ স্বর্ণের বার

দীর্ঘ ১৪ বছর পর রংপুরে বিদিশা এরশাদ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৩৭ বার

 

রিয়াজুল হক সাগর, রংপুর  প্রতিনিধিঃ

দীর্ঘ ১৪ বছর পর রংপুরে আসলেন পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা এরশাদ। রাজনীতিতে আসার িইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। এরশাদের করব জিয়ারত শেষে রাজনীতির জন্য সারাদেশ ভ্রমণের কথা জানিয়েছেন তিনি।
জাপা’র প্রয়াত চেয়ারম্যান এরশাদের রংপুরস্থ পল্লী নিবাস বাসভবনে আসেন এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা এরশাদ। ছেলে এরিক এরশাদকে নিয়ে প্রবেশ করেন বাড়িটিতে। বাড়িতে প্রবেশের পর নিচ তলায় এরশাদের ছবিকে জড়িয়েছে কাঁদেন এরিক এরশাদ ও মা বিদিশা। এরপর দ্বিতীয় তলায় সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন এরিক।
তিনি বলেন, আমি আমার মাকে নিয়ে রংপুরে এসেছি বাবার কবর জিয়ারত করার জন্য। আমার অনেক আগেই আসার কথা ছিল, কিন্তু অনেক বাধার কারণে আসতে পারিনি। ফোন করে আমাকে অনেক হুমকি দেয়া হয়েছিল যেন আমি রংপুরে না আসি। এবার আমরা কৌশল করে এসেছি। আমার মাকে আব্বা অনেক ভালোবাসতেন, তাই বাবার কবর দেখাতে মাকে নিয়ে এসেছি।
তিনি সাংবাদিকদের বলেন, রংপুরের মানুষ আমার আব্বার পাশে ছিলেন। তারা আমার পাশেও থাকবেন এবং আব্বার কবর দেখে রাখবেন। এটি রংপুরবাসীকে দায়িত্ব দিয়ে গেলাম।
সাংবাদিকদের বিদিশা এরশাদ বলেন, রাজনীতি করতে অনেক সাহসের প্রয়োজন। আমি বিদিশা আমার হাতে পয়সা নেই তবে আমার সাহস হচ্ছে আমার সন্তান। আমি আমার সন্তানের বাবার কাছে অনেক কিছু শিখেছি। মানুষের কাছে যাওয়া, কথা বলা শিখেছি। রংপুরের মানুষের ঘরে ঘরে আমাকে নিয়ে যেতেন তিনি। এই রংপুর থেকে রাজনীতি শিখেছি। আমি কিছুই ভূলি নাই।
বিদিশা এরশাদ বলেন, দীর্ঘ ১৪ বছর পর রংপুরে আসলাম। যেদিন এরশাদ সাহেবের সাথে এরিককে নিয়ে রংপুরের মাটিতে পা রাখি, রাস্তার দু’পাশে ফুলে ফুলে মানুষ আমাকে বরণ করে নিয়েছিলেন। অনেক শখ করে এরশাদ সাহেব আমাকে বিয়ে করেছিলেন। সুখের সংসার ছিল আমাদের এই সন্তানটিকে নিয়ে। কিন্তু সেটি সহ্য হয়নি অনেকের। কারণ এটি রাজনৈতিক পরিবার ছিল, আমরা প্রাসাদ রাজনীতির শিকার।
বিদিশা বলেন, সব সময় এরশাদ সাহেবকে একটি গ্রুপ ভূল বোঝানো ও আমাদের মধ্যে দুরুত্ব তৈরীতে ব্যস্ত ছিল। তাদের জন্য আমরা সংসার করতে পারিনি। আজও সেই গ্রুপটি সক্রিয় আছে। তারা এখন পাগল হয়েছে এরিকের সম্পদ লুটপাট করার জন্য। এরিকের ট্রাস্টে কত সম্পদ আছে তা সবাই জানে। কিন্তু এরিকের কোন কিছুই এরিকের কাছে নেই, সব দখল হয়ে গেছে। সবাই দখলের জন্য ব্যস্ত হয়ে গেছে। কেউ এই প্রতিবন্ধী বাচ্চার জন্য চিন্তা করে না।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনএ জোটের সভাপতি সেকেন্দার আলী মনি, মুখপাত্র শেখ মোস্তাফিজুর রহমান, মহাসচিব মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, সমন্বয়কারী আখতার হোসেন, এরশাদ ট্রাষ্টের পরিচালক ও এরিক এরশাদের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার অ্যাড. কাজী রুবায়েত হোসেন, ট্রাষ্টের প্রেস সচিব ও বিদিশা এরশাদের একান্ত সহকারী সায়েম সাকলায়েন সজীব।
এরপর এরিক এরশাদ, বিদিশা এরশাদ তাদের সফর সঙ্গীদের নিয়ে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত করেন। এ সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..