1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ় করেছিলেন বঙ্গবন্ধু: ড.কলিমউল্লাহ বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় একটি দেশ – প্রধানমন্ত্রী উখিয়ায় ৭ কোটি টাকার ইয়াবার বিশাল চালানসহ ইয়াবা সম্রাট আলমগীর আটক চন্দনাইশ থেকে প্রায় ৫৩ লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার, ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক রংপুরে জাতীয় দলের স্বপ্নাকে বরণ করতে জেলা প্রশাসকের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত রংপুরে অসাধু চক্রের দৌড়াত্ম, অনিয়ম অব্যবস্থাপনা ও জনদূর্ভোগের প্রতিবাদ জানিয়ে চিকিৎসকদের মানববন্ধন সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে তালা প্রতীক পেলেন ইমাম উদ্দিন চৌধুরী দুর্গাপুরে সাবেক এমপি জালাল তালুকদারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠিত নবাগত পুলিশ সুপারের সাথে “প্রিয় রাঙামাটি” সামাজিক সংগঠনের সাথে  সৌজন্য সাক্ষাৎ অভয়নগরে সড়ক দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

অর্ধ শতাধিক পথচারীদের অপহরণ করে মুক্তিপন আদায়,দুই অপহরণকারী আটক

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৭৩ বার

 

পুনম শাহরীয়ার ঋতু, গাজীপুরঃ
রাত গভীর হলেই ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের দূর্ধর্ষ অপহরণকারী চক্রের সদস্যদের তৎপরতা বেড়ে যায়। এ মহাসড়কের কোন নির্জন স্থানে কোন পথচারীকে একা কিংবা বিপদগ্রস্থ কাউকে পেলেই তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অপহরণ করে এ চক্র। পরে নিরাপদ স্থানে নিয়ে পথচারীদের পরিবারের কাছে মুক্তিপণের টাকা দাবী করে বিকাশের মাধ্যমে আদায় করে নেয় এ চক্রের সদস্যরা। তবে এ মহাসড়কে একাধিক গ্রুপে দূর্ধর্ষ অপহরণকারী চক্র রয়েছে বলে আট মামলার আসামী রাশেদ মিয়া (৩০) ওরফে হৃদয় কোনাবাড়ী পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।
গাজীপুর মহানগরে কোনাবাড়ী থানা পুলিশ বুধবার রাতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ফ্লাইওভারের উপর থেকে খোকন নামের এক পথচারীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের সময় পুলিশ এ চক্রের দুর্ধর্ষ দুই সদস্যকে হাতে নাতে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ থানার নিলক্ষীয়া গ্রামের মৃত আবু জাফর দেওয়ানের ছেলে রাশেদ মিয়া। সে কোনাবাড়ী এলাকার দক্ষিণ জরুন ডেল্টা গার্মেন্টস এর পাশের একটি বাড়ীতে ভাড়া থাকে। অপর আসামী হলো, শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানার পন্ডিতসার গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ইমরান হোসেন (২৮)। সে কোনাবাড়ী থানা এলাকার আমরাগ মিতালী ক্লাবের পাশে ইসমাইল হোসেনের বাড়ীর ভাড়াটিয়া।
ঈুলিশ, ভুক্তভোগি ও মামলার অভিযোগে জানা যায়, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে খোকন মিয়া নামের এক পথচারী ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কড্ডা ময়লার স্তুপের পাশ দিয়ে কোনাবাড়ীর আমবাগ এলাকায় আসার জন্য মহাসড়ক দিয়ে হাঁটতে থাকেন। এসময় দূর্ধর্ষ অপহরণকারী রাশেদ মিয়া খোকনের পিছন থেকে এসে চর থাপ্পর মারতে থাকে। পরে মারার কারণ জানতে চায় খোকন। এসময় অপর অপহরণকারী সদস্য ইমরান একটি মোটর সাইকেল নিয়ে তাদের কাছে চলে আসে।
পরে এ চক্রের দুই সদস্য পথচারী খোকনকে জোড় করে মোটর সাইকেলে তুলে টাঙ্গাইলের দিকে নিয়ে আসতে থাকে। মোটর সাইকেলটি কোনাবাড়ী ফ্লাইওভার ব্রীজের উপরে থামিয়ে খোকনের পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে বিশ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। এসময় পরিবারের সদস্যরা এবং সে দাবীকৃত টাকা দিতে পারবে না বলে জানালে দুই অপহরণকারী সদস্যরা খোকনকে ফ্লাইওভার ব্রীজের উপর থেকে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় খোকনের চিৎকারে টহলরত কোনাবাড়ী পুলিশের একটি টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে খোকনকে উদ্ধার করেন। এসময় ওই দুই অপহরণকারী সদস্যরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের হাতে নাথে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশ পরে গ্রেপ্তারকৃতদের কোনাবাড়ী থানায় নিয়ে যান। এঘটনায় খোকন বাদী হয়ে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দূর্ধর্ষ অপহরণকারীরা পুলিশকে জানান, তারা এ পর্যন্ত গাজীপুরের চৌরাস্তা বাইপাস এলাকা থেকে কালিয়াকৈরের চন্দ্রা ত্রিমোড় পর্যন্ত গত এক মাসে প্রায় অর্ধশতাধিক পথচারীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করেছে। তাদের বিরুদ্ধে জয়দেবপুর থানাসহ আটটি অপহরণ,চাঁদাবাজী ও নারী নির্যাতনের মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত রাশেদ মিয়ার নামেই আটটি মামলা রয়েছে। এ মামলাগুলোর মধ্যে জামালপুরের বকশিগঞ্জ থানায় মামলা নং-৫ ( তাং ০৫-১২-২০১৭,একই থানায় মামলা নং ১০( তাং ৮-১০-২০১৬), মামলা নং ১৪ (তাং ১৯-৯-২০১০), মামলা নং-০৮ (তাং- ১৪-০৩-২০০৬), ঢাকার আশুলিয়া থানায় মামলা নং-৭৩ তাং০৩-০৩-২০১৯, ডিএমপি উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা নং-৪৩ তাং২১-০৯-২০১৯, জয়দেবপুর থানার মামলা নং ১৫ তাং-০৩-০২-২০১৯খ্রি. কোনাবাড়ী থানায় আরেকটি অপহরণ মামলা রজু হয়েছে।
পুলিশ জানান, গ্রেপ্তারকৃত অপহরণকারী চক্রে আরো একাধিক সদস্য রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে সিডিএমএস পর্যালোচনা করে দেখা গেছে গ্রেপ্তারকৃত রাশেদ মিয়া একজন দূর্ধর্ষ অপহরণকারী। তাদের বিরুদ্ধে ৭-৮টি মামলা রয়েছে।
অপহৃত পথচারী খোকন মিয়া জানান, তিনি একটি কাজে কড্ডা যান। কাজ শেষে রাত সাড়ে নয়টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে কোন গাড়ী না পাওয়ায়, পায়ে হেটে কোনাবাড়ী আসতে থাকেন। এসময় কড্ডা ময়লার স্তুপের পাশে আসামাত্র ওই দুই অপহরণকারী প্রথমে তাকে মারধর করে। পরে একটি মোটরসাইকেলে তুলে কোনাবড়ী ফ্লাইওভার ব্রীজের উপর তুলে মাঝামাঝি এলাকায় থামে। পরে মোবাইল ফোনে পরিবারের কাছে বিশ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। তখন আমি দিতে অস্বীকার করলে ব্রীজ থেকে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে।
কোনাবাড়ী মেট্রো থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল মালেক খসরু জানান, গ্রেপ্তারকৃত দূর্ধর্ষ অপহরণকারীরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে পথচারীদের অপহরণ করে নির্জন স্থানে নিয়ে বিকাশে মুক্তিপণ আদায় করতো। এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৭-৮টি মামলা রয়েছে। তবে গ্রেপ্তারকৃতদের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..