1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ় করেছিলেন বঙ্গবন্ধু: ড.কলিমউল্লাহ বাংলাদেশ বিপুল পর্যটন সম্ভাবনাময় একটি দেশ – প্রধানমন্ত্রী উখিয়ায় ৭ কোটি টাকার ইয়াবার বিশাল চালানসহ ইয়াবা সম্রাট আলমগীর আটক চন্দনাইশ থেকে প্রায় ৫৩ লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার, ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক রংপুরে জাতীয় দলের স্বপ্নাকে বরণ করতে জেলা প্রশাসকের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত রংপুরে অসাধু চক্রের দৌড়াত্ম, অনিয়ম অব্যবস্থাপনা ও জনদূর্ভোগের প্রতিবাদ জানিয়ে চিকিৎসকদের মানববন্ধন সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে তালা প্রতীক পেলেন ইমাম উদ্দিন চৌধুরী দুর্গাপুরে সাবেক এমপি জালাল তালুকদারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠিত নবাগত পুলিশ সুপারের সাথে “প্রিয় রাঙামাটি” সামাজিক সংগঠনের সাথে  সৌজন্য সাক্ষাৎ অভয়নগরে সড়ক দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

কুলিয়ারচরে মাদ্রাসার শিক্ষক কর্তৃক এক শিশুকে বালৎকারের অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪৬০ বার

 

ফারজানা আক্তার,কুলিয়ারচর প্রতিনিধিঃ
কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে বড়খারচর আদর্শ নূরানী ও হাফিজয়া মাদ্রাসার এক শিশু ছাত্রকে বলৎকারের অভিযোগ উঠেছে অত্র মাদ্রাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত শিক্ষক হাফেজ মাওলানা ইয়াকুব আলী (৩৫) কুলিয়ারচর উপজেলার উছমানপুর ইউনিয়নের সাবেক সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা আব্দুল কাদিরের ছেলে।

অভিযোগকারির পরিবার সূত্রে জানা যায়, তাদের ছোট ছেলে গত ক’দিন ধরে মাদ্রাসায় যেতে না চাইলে মারধর করেন মা। শাসনের পরও সে মাদ্রাসায় যেতে অস্বীকৃতি জানায়। একপর্যায়ে পরিবারের চাপে ওই বাচ্চা ছেলে মাকে নিয়ে মাদ্রাসার নাম করে থানায় নিয়ে যায়।মা বাবার শাসন ও মারধরে পুলিশের কাছে অভিযোগ করবে ভেবে মা ছেলেকে থানার সামনে থেকে ফিরিয়ে আনে। তারপর শিশু ছেলেটি মাকে মাদ্রাসার কমিটির কাছে নিয়ে যেতে বলে । মা তখন মাদ্রাসা কমিটির সভাপতি সাত্তার মাস্টারের কাছে নিয়ে গেলে, কমিটির সভাপতির কাছে ছেলেটি তার সাথে হওয়া নির্মমতার ঘটনা খুলে বলে এবং তাকে থানায় নিয়ে যেতে বলে মাদ্রাসার সভাপতিকেও। ছোট্ট বাচ্চা ছেলের এমন কথা শুনে থ হয়ে যান, সভাপতিও।
এই ঘটনার পর, বিষয়টি থানায় অভিযোগ না করে স্থানীয় ভাবে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চলে।

এই বিষয়ে শিশু ছেলের সাথে কথা বললে সে জানায়, মাদ্রাসার ইয়াকুব আলী হুজুর তাকে রাত ২টার দিকে পর পর দুই দিন ঘুম থেকে ডেকে তুলে বলৎকার করে। বলৎকারের পর কোরআন ছুঁড়ে শপথ করানো হয়, কাউকে না বলার জন্য।
এইদিকে এই ঘটনা জানাজানি হলে মূহুর্তেই ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে এবং আইনের মাধ্যমে সঠিক তদন্ত করে এই ঘটনার কঠিন বিচারের দাবি জানান স্থানীয়রা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..