1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
গৃহযুদ্ধের পথে হাঁটছে আফগানিস্তান? - লাল সবুজের দেশ
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাউজান থানা পুলিশের অভিযানে ২২০ (দুইশত বিশ) বোতল ফেনসিডিল, ৩ কেজি ৬০০ গ্রাম গাঁজা ও পরিবহনে ব্যবহৃত ০১টি ট্রাকসহ গ্রেফতার ০৩জন টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের অভিযানে ইয়াবা সহ একজন মাদক কারবারি গ্রেফতার। স্থানীয় শিক্ষক নেতৃবৃন্দের ইন্ধনে দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের-বিএমএসএফ বরিশালে মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩ মোটর সাইকেল আরোহী নিহত আনোয়ারায় বিষধর সাপের কামড়ে মহিলা মেম্বারের মৃত্যু রূপগঞ্জে মাদকবিরোধী তরুণ প্রহরী দলের হাতে ১১ কেস বিয়ার আটক ডোমারে ‘উন্মুক্ত পাঠশালা’ উদ্বোধন মানিকগঞ্জে RAB-4 এর অভিযানে একজন মাদক ব্যবসায়ী আটক নাইক্ষ্যংছড়িতে বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ উদ্ধারঃ আটক ২ ধুনটে জলাতঙ্কে শিশুর মৃত্যু।

গৃহযুদ্ধের পথে হাঁটছে আফগানিস্তান?

  • আপডেট টাইম: সোমবার, ৩০ আগস্ট, ২০২১
  • ৭২ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ( মাসুম সরকার মন্টু)
রাজধানী কাবুলের উত্তরাঞ্চলের পাঞ্জশির উপত্যকার প্রবীণ একদল প্রভাবশালী নেতা যারা তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী, তারা কয়েক সপ্তাহের মধ্যে দেশটির পরবর্তী সরকার ও আলোচনার জন্য নতুন একটি ফ্রন্ট গঠনের পরিকল্পনা করছেন। একই সঙ্গে তারা কোনোভাবেই দেশের ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নেওয়া কট্টর ইসলামি গোষ্ঠী তালেবানের কাছে আত্মসমর্পন করবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন।
আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় বালখ প্রদেশের এক সময়ে প্রবল প্রতাপশালী গর্ভনর আত্তা মোহাম্মদ নূরের ছেলে খালিদ নূর বলেছেন, তাদের দলে জাতিগত উজবেক প্রবীণ নেতা আব্দুল রশীদ দোস্তম এবং তালেবানের ক্ষমতা দখলের বিরোধী অন্যান্য নেতারাও আছেন।
পাঞ্জশির ইতিহাস বরাবরই দখলমুক্ত থাকার। ১৯৭৯ সালে সাবেক সোভিয়েত বাহিনী আফগানিস্তানে অভিযান চালালেও পাঞ্জশির দখল করতে পারেনি। ১৯৯৬ সালে দেশটিতে যখন তালেবান বাহিনী প্রথম সরকার গঠন করল, তখনও অপরাজিত ছিল পাঞ্জশির। এর মূল কৃতিত্ব অবশ্য নর্দার্ন অ্যালায়েন্সের সাবেক নেতা আহমদ শাহ মাসুদের সাহসী ও কৌশলী নেতৃত্বের। নিজের নেতৃত্বগুণ ও সাহসিকতার জন্য যিনি পরিচিতি পেয়েছিলেন ‘পাঞ্জশিরের সিংহ’ নামে।
২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে টুইন টাওয়ারে হামলার দুই দিন আগে, ৯ সেপ্টেম্বর মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়েদা নেটওয়ার্কের হাতে গুপ্তহত্যার শিকার হন আহমদ শাহ মাসুদ। সেই আহমদ মাহ মাসুদের ছেলে পাঞ্জশিরের নিয়ন্ত্রণকারী রাজনৈতিক জোট নর্দার্ন অ্যালায়েন্সের প্রধান আহমাদ মাসুদ বলেছেন, তিনি প্রয়োজনে মৃত্যুকে বরণ করে নেবেন, তবুও আত্মসমর্পণ করবেন না।
তালেবানের ক্ষমতা দখলের বিরোধিতায় ইতোমধ্যে পাঞ্জশিরে ন্যাশনাল রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট গঠন করেছেন দোস্তম, নূর ও অন্যান্যরা। তালেবানবিরোধী এই দলে ৯ হাজারের বেশি সদস্য যোগ দিয়ে পাঞ্জশির উপত্যকায় অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ নিতেও শুরু করেছেন। অজ্ঞাত স্থান থেকে রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ২৭ বছর বয়সী নূর বলেন, ‘আমরা সামগ্রিক দিক থেকে আলোচনায় আগ্রহী। কারণ এই বিষয়টি এমন নয় যে আফগানিস্তানের সমস্যার সমাধান কেবল আমাদের একজনের দ্বারাই হবে।’
তিনি বলেন, যে কারণে দেশের পুরো রাজনৈতিক সম্প্রদায়, বিশেষ করে যারা বংশ পরম্পরায় নেতা, যাদের ক্ষমতা আছে এবং জনসমর্থন আছে; তাদের এ ধরনের সংকটে সমাধানের পথ খোঁজার সময় জড়িত থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ।

কোনও ধরনের প্রতিরোধ ছাড়াই যখন উত্তরাঞ্চলীয় শহর মাজার-ই-শরিফ তালেবানের দখলে চলে যায়, তখনই পাঞ্জশির উপত্যকায় পালিয়ে যান আফগানিস্তানের চার দশকের সংঘাতের তালেবানবিরোধী প্রবীণ নেতা আব্দুল রশীদ দোস্তম ও আত্তা নূর।
গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুলে তালেবান ঢুকে পড়ার পর যুক্তরাষ্ট্র-সমর্থিত সরকার এবং সামরিক বাহিনীর পতন ঘটে। যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা সামরিক বাহিনী তালেবানের তড়িৎগতির অভিযানে দেশ দখলের মুখে আফগান ছাড়তে শুরু করে।

তালেবানের আকস্মিক ক্ষমতা দখলে দেশটির প্রবীণ প্রভাবশালী তালেবানবিরোধী নেতারা আবারও সামনে আসতে শুরু করেছেন। অধিকাংশ বিশেষজ্ঞ বলেছেন, দেশের বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর সদস্যদের অংশগ্রহণ ছাড়া একক কোনও গোষ্ঠীর জন্য আফগানিস্তান দীর্ঘসময় ধরে শাসন করা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।
২০০১ সালের আগের শাসনকালের বিপরীতে এবারে পশতুন সংখ্যাগরিষ্ঠ তালেবান দেশ শাসনের জন্য তাজিক, উজবেক এবং অন্যান্য সংখ্যালঘুদের সমর্থন চেয়েছে। যদিও এ নিয়ে এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোনও অগ্রগতি চোখে পড়েনি।
আগের শাসনের সময় তালেবান সংখ্যালঘু জাতিগত গোষ্ঠীগুলোকে বাদ দিয়ে সরকার গঠন করেছিল উল্লেখ করে নূর বলেন, এবারে তালেবানরা অত্যন্ত দম্ভ দেখাচ্ছে। কারণ তারা কেবলমাত্র সামরিক দিকে থেকে জয় পেয়েছে। কিন্তু আমরা ধারণা করছি যে, তারা আগে যেভাবে শাসন করেছিল এবারে সেটি করতে গেলে ঝুঁকি তৈরি হবে এবং তারা এই ঝুঁকির ব্যাপারে জানে।
আত্মসমর্পণের প্রশ্নই আসে না
আলোচনার প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও নূর বলেন, ‘আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার প্রচুর ঝুঁকি আছে। যে কারণে ইতোমধ্যে তারা তালেবানের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধের প্রস্তুতি নিয়েছেন।’ কাতারে তালেবানের সাথে আলোচনায় পূর্ববর্তী আফগান সরকারের প্রতিনিধি দলের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন নূর। তিনি বলেন, ‘আমাদের আত্মসমর্পণের প্রশ্নই আসে না।’
আফগানিস্তানে তালেবানের সর্বশেষ এবং প্রধান বিরোধী গোষ্ঠীর নেতা আহমাদ মাসুদ গত সপ্তাহে বলেছিলেন, তালেবানের সঙ্গে আলোচনার ফলে একটি অন্তর্ভূক্তিমূলক সরকার গঠিত হবে বলে তিনি আশা করছেন। আলোচনা ব্যর্থ হলে তার বাহিনী যুদ্ধের জন্যও প্রস্তুত আছে।
তবে ব্যাপক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত আত্তা নূর এবং নির্যাতন ও নির্মমতার জন্য দুর্ধর্ষ হিসেবে পরিচিত আব্দুল রশীদ দোস্তমের মতো নেতারা কতটা জনপ্রিয় সমর্থন পাবেন তা অনিশ্চিত রয়েছে। এছাড়া দোস্তমকে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর যুদ্ধবাজ আফগান নেতা হিসেবে বর্ণনা করেছে। তবে উভয় নেতাই তাদের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
তালেবানরা ইতোমধ্যে অদম্য সামরিক বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। যাদের দখলে আছে প্রায় ২ হাজার সাঁজোয়া যান, ৪০টি উড়োজাহাজ। এছাড়া পিছু হটা আফগান সামরিক বাহিনী ও পশ্চিমা সৈন্যদের অস্ত্রও তালেবানের কব্জায় রয়েছে। এর ফলে তাদের সামরিক অস্ত্রের সক্ষমতাও বৃদ্ধি পেয়েছে।
তারপরও নূর বলছেন, জনগণের প্রতিরোধের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারবে না তালেবান। পশ্চিমা শিক্ষিত এই রাজনীতিবিদ বলেছেন, ‘ইতিহাসে দেখা যায়, কেউই জোর করে আফগানিস্তান শাসন করতে পারেন নাই। এটি অসম্ভব। তালেবানের প্রতি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের যতো সমর্থনই থাকুক না কেন, তা ব্যর্থ হবে।
এদিকে, তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, বিভিন্ন গোষ্ঠীর সদস্যদের সমন্বয়ে সরকার গঠনের আলোচনা চলছে, তবে তা সফল হওয়ার সম্ভাবনা ৬০ শতাংশ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 lalsabujerdesh.com ।
Theme Customized By BreakingNews