দুর্গাপুরে সরকারি সম্পত্তি দখলের চেষ্টা ও চাঁদা দাবীর অভিযোগ

 

দুর্গাপুর প্রতিনিধি

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ভিপি মোকদ্দমা ভূক্ত সরকারি সম্পত্তি দখল চেষ্টা ও চাঁদা দাবীর অভিযোগ উঠেছে দুর্গাপুর পৌরসভাধীন চকলেংগুরা গ্রামের মোঃ নয়ন মিয়া ও তার স্ত্রী মোছাঃ মানছুরা বেগম এর বিরুদ্ধে। শনিবার সকালে স্থানীয় সাংবাদিকদের এমনটাই জানালেন জমির লীজগ্রহীতা আহাম্মদ আলী।
অভিযোগ সুত্র ও লীজ গ্রহীতা মোঃ আহাম্মদ আলী বলেন, ১৯৮০ইং সনের ১৩৬৯ নং স্মারকের এক আদেশমূলে এস.এ খতিয়ান ৬৬৩, ১৮৯২ দাগে ৩২ শতাংশ, এস.এ খতিয়ান ৪৪৭,১৮৬৯ দাগে ৬ শতাংশ, ১৮৮৫ দাগে ১২ শতাংশ ও ১৮৯১ দাগে ১৫ শতাংশ সহ মোট ৬৫ শতাংশ ভূমি এক মোকদ্দমার মাধ্যমে লীজ প্রাপ্ত হন। ওই জমি ওয়ারিশ দাবী করে দখলে নেয়ার জন্যে অপর একটি মহল উঠে পরে লেগেছে। তাদের ইন্দনে ঐ জমিতে মৃত ওয়াহেদ আলীর পুত্রদ্বয় আলমগীর মীর্ধা, ফরহাদ মীর্ধা ও খলিল মীর্ধা দখল প্রচেস্টা অব্যাহত রেখেছে। এছাড়া স্থানীয় কিছু চিহ্নিত লোকজন নিয়ে আমার কাছে চাঁদা দাবী করছেন। এ বিষয়ে গত ২০ জানুয়ারী দুর্গাপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন আহাম্মদ আলী। ওই রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অন্যান্যদের ঘর বাঁধার সরঞ্জামাদি সরিয়ে নিতে বলেন।

সরকারি জমি দখলের বিষয়ে নয়ন মিয়া ও তার স্ত্রী মানছুরা বেগম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই জমি আমাদের পুর্বপুরূষদের। ওয়ারিশসুত্রে এই জমির মালিক আমরাই।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আরিফুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সরকারের জমি যাকে লিজ দেওয়া হয়েছে যদি খাজনাদি পরিশোধ থাকে তাহলে তিনিই জমির অস্থায়ী মালিক, এখানে অন্যের দখল চেষ্টা বা মালিকানা দাবী করার কোন সুযোগ নাই।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাজীব-উল-আহসান বলেন, বিষয়টি আমি অবগত আছি, যেহেতু এটি সরকারের সম্মত্তি, সেহেতু প্রশাসনের সহায়তায় জমি থেকে সরঞ্জামাদি সরিয়ে লীজগ্রহীতাকেই দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.