1. admin@lalsabujerdesh.com : ডেস্ক :
  2. lalsabujerdeshbd@gmail.com : Sohel Ahamed : Sohel Ahamed
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৫:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পাবনা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনের অযৌক্তিক ভাড়া নির্ধারণের প্রতিবাদে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত সাভারে সাংবাদিক সোহেল রানাকে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা দুর্নীতিতে আক্রান্ত রুটিরুজিও? জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্ধোধন মনে পড়ে ড্রিম গার্ল শ্রীদেবীকে? ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের মাধ্যমে নরসিংদী সদর প্রেস ক্লাবের কমিটি গঠন। ফেনী শহরের আবাসিক হোটেল গুলোতে মাদক, জুয়াসহ চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা,ধ্বংসের মুখে তরুণ সমাজ বঙ্গবন্ধুর সংবেদনশীলতা ছিল অতুলনীয়: ড.কলিমউল্লাহ সাবেক সিনিয়র সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী (সৌরেন)আগামী নমিনেশনের জন্য দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে প্রচারনা চালাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু বাঙালির প্রতি ভালবাসার অফুরান ঝর্ণাধারার উৎস: ড.কলিমউল্লাহ বঙ্গবন্ধু অধ্যবসায়ী নেতা ছিলেন: ড.কলিমউল্লাহ

ফেনীর সোনাগাজীতে মোশারফ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ।

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২
  • ৩১ বার

 

গাজী মোহাম্মদ হানিফ, সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি :-
ফেনীর সোনাগাজী উপজেলাধীন (কুদ্দুসমিয়ার হাট) মোশারফ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সারওয়ার আলমের অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতা সহ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে অসৌজন্য আচরণের প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন স্কুল শিক্ষার্থীরা।

গত ২৫ ও ২৬ শে জুন ক্লাস বর্জন করে স্কুল গেইটে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভে ছাত্র ছাত্রীরা প্রধান শিক্ষকের পদত্যাগের দাবিতে তার বিরুদ্ধে নানান শ্লোগান দেয়। বেআইনী ভাবে দুই শিক্ষককে অপসারণের চেষ্টার নিন্দা জানায়। ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষ শুরু হলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক স্কুল ত্যাগ করে চলে যান।

বিক্ষোভের ২য় দিন সোনাগাজী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ নুরুল আমিন, আমিরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল হক হিরণ ও উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ফারুক হোসেন স্কুলে এসে সহকারি প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলাম সহ সৃষ্ট সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বিক্ষোভরত ছাত্র ছাত্রীদের নিবৃত্ত করে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া ১০ম শ্রেণীর ছাত্র সাইফুল ইসলাম রাকিব জানান, প্রধান শিক্ষকের স্বেচ্ছাচারী ও হঠকারি সিদ্ধান্তে আমরা অতিষ্ঠ, তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে দুই জন শিক্ষক কে শোকজ করে এবং একজন কে গালমন্দ করে স্কুল থেকে বের হয়ে যেতে বলে।

বিক্ষোভে একাত্মতা প্রকাশ করতে আসা সাবেক ছাত্র আমিনুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম দূর্ণীতিতে আমরাও অতিষ্ঠ, আমি একবার প্রতিবাদ করলে আমাকে ফোন করে র‍্যাব পুলিশে ধরিয়ে দিবে বলে হুমকি দেয়।

বিদ্যালয়ের সহ-প্রধান শিক্ষক জানান, বিক্ষোভে অংশ নেয়া ছাত্রছাত্রীদের বুঝিয়ে শুনিয়ে ক্লাসে ফেরানো হয়েছে, সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

গালমন্দ ও অসৌজন্য আচরণের শিকার শিক্ষক শংকর চন্দ্র দেবনাথ বলেন, আমি শরীরচর্চা শিক্ষক, সকালে ক্লাস শুরুর আগে আমার কাজ থাকে তাই আমাকে ১ম পিরিয়ড না দিতে অনুরোধ করেছিলাম, এটা নিয়ে তিনি আমাকে যাচ্ছেতাই ব্যবহার করেন এবং কারণ দর্শানো নোটিশ দেন, আমি ব্যাক্তিগত কাজে ঢাকা যাওয়ার প্রয়োজনে দুইদিনের ছুটির আবেদন করলে তাও নামঞ্জুর করেন। স্কুলের প্রতিষ্ঠাকালিন থেকে নিয়োগকৃত সিনিয়র শিক্ষক গোলাম আব্বাস জানান, একজন শিক্ষককে মানহানিকর ভাবে কথা বলে লাঞ্ছিত করায় আমি প্রতিবাদ করি, সেজন্য আমাকেও মিথ্যা অভিযোগে হাস্যকরভাবে শোকজ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর একজন সহকারি শিক্ষক জানান, প্রধান শিক্ষক সরোয়ার আলম কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে, শিক্ষকদের সাথে পরামর্শ না এমনকি স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সাথে কোন যোগাযোগ না করে নিজের মতের অমিল হওয়ায় দুজন সিনিয়র সম্মানিত শিক্ষক কে শোকজ করেন, স্কুল পরিচালনায় প্রায় তিনি স্বেচ্ছাচারী মূলক আচরণ করেন, তার রূঢ় আচরণের কারণে স্কুলের আশপাশের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ এ স্কুল বিমুখ, অভিভাবকরাও চরম অসন্তুষ্ট।

বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা জানান, প্রধান শিক্ষক যথাসময়ে স্কুলে আসেননা, আবার যখন ইচ্ছে হয় চলে যান। উপবৃত্তির কথা বলে ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে দুইশত টাকা করে আদায়, ইউনিক আইডি কথা বলে দুইশত টাকা আদায়,উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন আদায়, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আইসিটি বাবদ বাৎসরিক দুইশত টাকা করে আদায় করলেও আইসিটির কোন কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়না, আইসিটির কাজগুলো কম্পিউটার দোকানে করা হয়, এতে বিদ্যালয়ের আর্থিক ক্ষতি হয় ও ছাত্র ছাত্রীরা কম্পিউটার ব্যাবহারিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। স্কুলের কেরানী পদে স্বেচ্ছাচারিতা করে নিজের আত্মীয়কে টাকার বিনিময়ে নিয়োগ দান করার অভিযোগ রয়েছে, অত্র বিদ্যালয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বা বিশেষ দিবস সমূহও ঠিকমতো পালন করা হয়না ইত্যাদি অভিযোগ করে ছাত্রছাত্রী ও এলাকাবাসী এবং তারা প্রধান শিক্ষক সারওয়ার আলমের পদত্যাগ দাবি করেন।

ছাত্রদের বিক্ষোভ ও ক্লাস বর্জনের বিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষক সারওয়ার আলম কে প্রশ্ন করলে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে উত্তেজিত হয়ে বলেন- আপনাদের যা ইচ্ছে হয় লিখুন, আমার কিচ্ছু হবেনা।

সোনাগাজী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ নুরুল আমিন ঐ স্কুলে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- ছাত্রছাত্রীদের বুঝিয়ে শুনিয়ে ক্লাসে ফিরে যেতে বলা হয়েছে, তাদের অভিযোগ সমুহ নোট করা হয়েছে, এই বিষয়ে শীঘ্রই যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..