ইতিহাস গড়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের আভাস দিয়ে রেখেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে হেরে যায় স্বাগতিকরা। বুধবার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চতুর্থ ম্যাচে ৬ উইকেটে জিতে ইতিহাস গড়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে টাইগাররা।
ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দল বেশ শক্ত অবস্থান তৈরি করলেও সীমিত ওভারের আরেক ফরম্যাট টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের জায়গা নড়বড়ে ছিল বেশ। আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভাবনা বাড়ছিল টাইগারদের। তবে সম্প্রতি এই ফরম্যাটেও অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠেছে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। নিজেদের খেলা সবশেষ তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজের সবগুলোতেই জিতেছে টাইগাররা।
কিছুদিন আগে জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে আসলো বাংলাদেশ দল। ঘরের মাঠে ফিরেই ইতিহাস রচনা করে টাইগাররা। প্রথমারের মতো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ। ৪-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দেয় অজিদের। আরও একটি ইতিহাস রচনা হলো আজ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও প্রথমবারের মতো কুড়ি ওভারের সিরিজ জিতল বাংলাদেশ দল।
কিউইদের বিপক্ষে বাংলাদেশ দলের পাঁচ ম্যাচের এই সিরিজ শুরু হয় গত ১ সেপ্টেম্বর। প্রথম দুই ম্যাচে দাপট দেখিয়ে জেতে স্বাগতিকরা। গত ৫ সেপ্টেম্বর সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ জিতলে ইতিহাস লেখা হতো সেদিনই, তবে অপেক্ষা বাড়লেও আক্ষেপে পুড়তে হয়নি স্বাগতিকদের। সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে কিউইদের ৯৩ রানে বেধে দিয়ে ৯৪ রানের লক্ষ্য টপকাতে নেমে ৬ উইকেটের জয়। এতেই লেখা হয়েছে ইতিহাস!
এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশি বোলারদের বোলিং তোপে একেবারেই সুবিধা করেত পারেনি নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ৯৩ রানেই গুঁটিয়ে যায় তাদের ইনিংস। জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুটাও ছিল বেশ নড়বড়ে। প্রথম দুই ওভার থেকে স্কোর বোর্ডে ৪ রান তুলতে পারেন দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাঈম শেখ।
ইনিংসের তৃতীয় ওভারে নিজের প্রথম ওভার করতে এসে ব্রেক-থ্রু এনে দিন স্পিনার কোল ম্যাককঞ্চি। ফেরান ৬ রানে ব্যাট করা লিটনকে। পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে জোড়া আঘাত হানেন এজাজ প্যাটেল। শুরুতে তার শিকারে পরিণত হন সাকিব আল হাসান। ৮ বলে ৮ রান করে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন তিনি। দুই বল বাদে বোল্ড হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন মুশফিকুর রহিম। রানের খাতা খুলতে পারেননি এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।
৬ ওভার শেষে ৩২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে খানিক বিপদে পড়ে বাংলাদেশ দল। সেখান থেকে দলকে বিপদমুক্ত করেন ওপেনার নাঈম ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। চতুর্থ উইকেটে দুজনের জুটি থেকে আসে ৩৪ রান। ধীরগতির ব্যাটিংয়ে দুজন মিলে অবশ্য খরচ করেন ৫১ বল। নাঈম সেট হয়েও ম্যাচ শেষ করতে ব্যর্থ হলে ভাঙে এই জুটি। ঝুঁকি নিয়ে ২ রান নিতে গেলে রান আউটে কাটা পড়ে ফেরেন ৩৫ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলে।
এরপর আফিফ হোসেন যখন উইকেটে এলেন, তখন জয়ের জন্য বাংলাদেশ দলের প্রয়োজন ছিল ৩৩ বলে ২৪ রান। বাকি আনুষ্ঠানিকতা সারতে একেবারে ঝুঁকি নেননি মাহমুদউল্লাহ ও আফিফ। দুজনের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে ইতিহাস লেখে বাংলাদেশ। এতে ৬ উইকেট ও ৫ বল হাতে রেখে জয় পায় বাংলাদেশ দল। সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া মাহমুদউল্লাহ ৪৮ বলে ৪৩ রানে অপরাজিত থাকেন। আফিফের ব্যাট থেকে আসে ৬ রান।
এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের ইনিংসের শুরুটা একেবারেই ভালো করতে পারেনি নিউজিল্যান্ড। ইনিংসের প্রথম ওভারেই ওপেনার রাচিন রবীন্দ্রকে ফেরান বাংলাদেশি বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ। মেডেন ওভারে কিউই ওপেনারকে তুলে নেন তিনি। এতে রানের খাতা খোলার আগে সাজঘরে ফেরেন রাচিন। এক ওভার না যেতেই আবার আঘাত হানেন এই বাঁহাতি স্পিনার। এবার ফেরালেন ফিন অ্যালেনকে। ৮ বলে ১২ রান করেন অ্যালেন।
পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে মোটে ২২ রান তুলতে পারা সফরকারীরা পরে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। ইনিংসের ১১তম ওভারে প্রথমবার বল হাতে নিয়ে সফল শেখ মেহেদী হাসানও। উইকেটে থিতু হয়ে যাওয়া টম লাথামকে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলে আউট করেন তিনি। ২১ রান করে সাজঘরে কিউই অধিনায়ক। উইল ইয়াং একপ্রান্ত আগলে রেখে খেললেও অপর প্রান্ত থেকে তার সতীর্থরা আসা-যাওয়ার মিছিলে যোগ দেন।
দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে আবার সাফল্য পান নাসুম। নিজের স্পেলের চতুর্থ ও শেষ ওভার হাত ঘুরাতে এসে জোড়া আঘাত হানেন তিনি। পরপর দুই বলে ফেরান হেনরি নিকোলস (১) ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে (০)। হ্যাটট্রিকের সুযোগ ছিল এই স্পিনারের সামনে তবে নতুন ব্যাটসম্যান টম ব্লান্ডেল লাফিয়ে ওঠা বলটি ব্যাট না বাড়িয়েই ছেড়ে দেন। এতে চার ওভারে দুই মেডেনে মাত্র ১০ রান দিয়ে ৪ উইকেট নাসুমের।
পরের চিত্রনাট্য লিখেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। ইনিংসের ১৬তম ওভারে বল করতে এসে দ্বিতীয় বলেই ব্লান্ডেলকে সাজঘরে ফেরান তিনি। মিডঅনে থাকা নাঈম শেখের দারুণ ক্যাচে ১০ বলে মাত্র ৪ রান করে আউট হন এই ব্যাটসম্যান। একই ওভারের শেষ বলে কোল ম্যাককঞ্চিকে নিজের বলে নিজেই দুর্দান্ত এক ক্যাচে সাজঘরের পথ ধরান। পরে ইনিংসের শেষ ওভারে পর পর দুই বলে আরও দুই উইকেট পান মুস্তাফিজ।
ইয়াংকে নিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন বাঁহাতি পেসার। ৪৮ বলে ৪৬ রানের লড়াকু ইনিংস আসে ইয়াংয়ের ব্যাট থেকে। পরের বলে ব্লেয়ার টিকনারকে তুলে নিলে অলআউট হওয়া নিউল্যান্ডের ইনিংস থেমেছে মাত্র ৯৩ রানে। জয়ের জন্য বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৯৪ রানের। নাসুমের পাশাপাশি এ ম্যাচে পেসার মুস্তাফিজুর রহমানও নেন সমান ৪ উইকেট। ৩ ওভার ৩ বল থেকে তিনি খরচ করেন ১২ রান।

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে ইতিহাস গড়া জয় বাংলাদেশের

নিজস্ব প্রতিবেদক
আগের ১০ দেখায় একবারও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এই প্রথম নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে জিতল টাইগাররা। ব্যবধানটাও থাকল বেশ বড়। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে ৭ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।
বাংলাদেশ ক্রিকেটে আজ বড় খবর হওয়ার কথা ছিল নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে ইতিহাস গড়া জয়! কিন্তু ম্যাচটি বুধবার বিকেল চারটায় শুরু হওয়ার ঘণ্টা তিনেক আগে রীতিমতো বিস্ফোরক এক বার্তা দিয়ে বসলেন তামিম ইকবাল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ভিডিও বার্তায় জানিয়ে দিলেন, আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন না তিনি। এতে ক্রিকেটাঙ্গনের সমস্ত আলোচনা এখন তাকে ঘিরে। তবে মাঠে নিজেদের কাজটি ঠিকই সেরে নিল বাংলাদেশ দল।
টাইগাররা মিরপুরে প্রবেশ করার আগে তামিমের খবরটি পেয়ে যাওয়ার কথা। মাঠে নামার আগে তো নিশ্চয়ই। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ টস করতে যখন নামলেন, তখনো হয়তো আনমনে ভাবছেন, দলের একজন অভিজ্ঞ সেনানীকে ছাড়াই বিশ্বকাপের মতো যুদ্ধের ময়দানে নামতে হবে তাকে!
তবে সে সব ভাবনার প্রভাব পড়ল না মাঠের পারফরম্যান্সে। নিউজিল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টিতে হারাল টাইগাররা।
শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ফিল্ডিং করতে নেমে বাজিমাত স্বাগতিক বোলারদের। সাকিব আল হাসান, নাসুম আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমানদের বোলিং তোপে লজ্জায় পড়তে হলো নিউজিল্যান্ড দলকে। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে কিউইদের সর্বনিম্ন সংগ্রহ ছিল ৬০ রান। আজ সেই দৃশ্যের পুরনাবৃত্তি ঘটল। সমান ৬০ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারীরা।
জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলেরও। তবে জয় পেতে বেগ পেতে হয়নি স্বাগতিকদের। ৩ উইকেট হারিয়ে ৩০ বল বাকি রেখেই জিতে যায় বাংলাদেশ।
এতে ইতিহাস রচনা হলো মিরপুরে। এই ফরম্যাটে এর আগে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ১০টি ম্যাচ খেললেও জয়ের স্বাদ পায়নি লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। আজ সেই আক্ষেপ ঘুচল। ইতিহাস রচনার দিনে সাকিবের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ২৫ রান। মুস্তাফিজ নেন ৩ উইকেট।

ডাক্তার আমাকে বলেছে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকতে : পাপন

লাল সবুজের দেশ রিপোর্ট ঃ

বাংলাদেশের ক্রিকেটের সঙ্গে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত একটি নাম- নাজমুল হাসান পাপন। টানা দুই মেয়াদে তিনি বিসিবির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। শুধু তাই নয়, মাঝে মাঝে একাদশ সাজানো, টসের সিদ্ধান্ত, দলীয় সিদ্ধান্ত ইত্যাদি বিষয়ে নাক গলিয়ে সমালোচিতও হয়েছেন। তারপরেও তিনি ক্রিকেটে নিজেকে আরও বেশি সম্পৃক্ত করে রাখেন। সেটা ক্রিকেটপ্রেম থেকেই। এবার তিনি নিজেই বললেন, ডাক্তার নাকি তাকে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে।
বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি বস বলেন, ‘ডাক্তারের পক্ষ থেকে আমাকে বারবার বলা হয়েছে যে ক্রিকেট থেকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দূরে সরে যেতে। অন্তত বোর্ডে থাকলেও এই জিনিসগুলো যেন না করি। মাঝখানে এক বছর আমি এটার সাথে ছিলাম না, ভালোই ছিলাম। কিন্তু এখন আবার টের পাচ্ছি, অনেক সময় নিয়ে নিচ্ছে ক্রিকেট। সবার খোঁজ নেয়া, টিম নিয়ে কথা বলা- এ জিনিসটা যে আমার শুরু হয়েছে, আসলে এটা অনেক সময় নিয়ে নিচ্ছে আমার।’
বিসিবি সভাপতি হিসেবে প্রায় ৯ বছর ধরে বিসিবির দায়িত্ব পালন করছেন পাপন। আগামী অক্টোবরের নির্বাচনে তারই নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এখনো দল হারলে তিনি আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন। মন খারাপ হয়ে যায়। পাপন আরও বলেন, ‘আমার একটা খারাপ দিক হলো, বাংলাদেশ হারলে আমি মেনে নিতে পারি না। বাংলাদেশ হারলে অনেক মেজাজ খারাপ হয়। আমার বউ-বাচ্চারা কেউ আমার সামনে আসে না। এতটা খারাপ লাগে। এটা আসলে অনেক বেশি সময় নিয়ে নিচ্ছে, যা নিয়ে আমার আগে ধারণা ছিল না।’

একাদশে মোস্তাফিজ, আবারও বাদ সাকিব

ক্রীড়া ডেস্ক : ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চলতি আসরের ১৮ তম ম্যাচে মুখোমুখি কলকাতা নাইটরাইডার্স ও রাজস্থান রয়্যালস। এই ম্যাচেও সাকিবকে রাখেনি কলকাতা। অন্যদিকে টানা মোস্তাফিজকে টানা খেলিয়ে যাচ্ছে রাজস্থান।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় খেলাটি শুরু হচ্ছে। এই ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছে রাজস্থান । চলতি আসরে এখন পর্যন্ত দুই দলের অবস্থানই নাজুক। এই ম্যাচে জয়ে ফিরতে দুই দলই মরিয়া।

কলকাতার হয়ে সাকিব শুরু থেকে খেলেছিলেন এই আইপিএলে। তিন ম্যাচে সাকিব থেকে ভালো পারফর্ম না পাওয়ায় তাকে গত ম্যাচে বাদ দেয় কলকাতা। তিন ম্যাচে সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ৩৮ রান। বল হাতেও ছিলেন নিস্প্রভ। তিন ম্যাচে উইকেট পান দুটি। রান দেন ৮১। বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ম্যাচে বল করেছেন মাত্র দুই ওভার। এই দুই ওভারে ২৪ রান দেওয়ায় আর বল দিতে সাহস পাননি কলকাতার অধিনায়ক মরগ্যান।

এদিকে মোস্তাফিজ চার ম্যাচ খেলে তিন উইকেট নিয়েছেন। আহামরি কোনো পারফরম্যান্স দেখাতে পারেননি। সেরা পারফরম্যান্স ছিল দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে ২৯ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ২ উইকেট। পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে ছিল বাজে পারফরম্যান্স। ওই ম্যাচে ৪৫ রান দিয়ে কোনো উইকেটের দেখা পাননি। চেন্নাইয়ের বিপক্ষে ৩৭ রান দিয়ে নিয়েছেন ১ উইকেট। বেঙ্গালুরু বিপক্ষে ৩৪ রান দিয়ে কোনো উইকেটের দেখা পাননি।

দুই দল নিজেদের শেষ ম্যাচ হেরেছে। কলকাতা হেরেছে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে। চলতি আসরে ৪ ম্যাচে ১ জয়ে তাদের পয়েন্ট মাত্র ২। রাজস্থানকে হারিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। জয়ে ফিরতে মরিয়া দুই দলই। অন্যদিকে রাজস্থানেরও ৪ ম্যাচে ১ জয়ে ২ পয়েন্ট। প্লে’ অফের লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে দুই দলকেই ওয়াংখেড়েতে ঘুরে দাঁড়াতে হবে।

গত তিন আসরে সর্বশেষ পাঁচ দেখায় জয়ের পাল্লা ভারি কলকাতার। সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই বড় জয় পেয়েছে কলকাতা। একটিতে জয় পেয়েছে রাজস্থান। গত আসরের দুটি ম্যাচে একটিতেও জয় পায়নি মোস্তাফিজের দল।

রাজস্থান: জস বাটলার, জশস্বি জয়সওয়াল, সাঞ্জু স্যামসন (অধিনায়ক ও উইকেটকিপার), ডেভিড মিলার, শিবম দুবে, রিয়ান পরাগ, ক্রিস মরিস, রাহুল তেওয়াতিয়া, জয়দেব উনাদকাট, চেতন সাকারিয়া, মোস্তাফিজুর রহমান।

কলকাতা: নিতিশ রানা, শুভমান গিল, রাহুল ত্রিপাঠী, এউইন মরগ্যান (অধিনায়ক), দিনেশ কার্তিক (উইকেটকিপার), আন্দ্রে রাসেল, প্যাট কামিন্স, শিভাম মাবি, সুনীল নারিন, বরুণ চক্রবর্ত্তী, প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা।

ক্যান্ডির প্রথম দিনটা বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে আজ মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচের প্রথম দিনেই শান্ত-মুমিনুলদের দৃঢ়তায় চালকের আসনে টাইগাররা। প্রতিটি সেশন জিতে প্রথম দিনটা নিজেদের করে নিয়েছে সফরকারীরা।

প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেট হারিয়ে ৩০২ রান। সেঞ্চুরি করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এছাড়া ফিফটি করেছেন তামিম ইকবাল ও মুমিনুল হক।

বুধবার ক্যান্ডির পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল। এ সিরিজটি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্গত। দলের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন তামিম ইকবাল ও সাইফ হাসান।

প্রথম ওভারে দুই চারের সাহায্যে তামিম ৮ রান করে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দেন। তবে পরের ওভারে রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফেরেন সাইফ। তাকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন বিশ্ব ফার্নান্দো।

শুরুতে উইকেট হারালেও দলকে চাপে পড়তে দেননি তামিম। পাল্টা আক্রমণে দ্রুত রান তুলতে থাকেন তিনি। দেশসেরা ব্যাটসম্যান ক্যারিয়ারের ২৯তম ফিফটি পূরণ করেন মাত্র ৫২ বলে।

অবিচ্ছিন্ন থেকেই প্রথম সেশন শেষ করেন তামিম ও শান্ত। দ্বিতীয় সেশনেও ঠান্ডা মাথায় খেলে দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন তারা। ধীরগতিতে এগোতে থাকা শান্ত ১২০ বলে ফিফটি পূরণ করেন।

এরপরই ব্যক্তিগত ৯০ রানে বিশ্ব ফার্নান্দোর দ্বিতীয় শিকার হন তামিম। দারুণ খেলতে থাকা এই টাইগারর ওপেনার স্লিপে লাহিরু থিরিমান্নের হাতে ক্যাচ তুলে দেন। ওয়ানডে স্টাইলে খেলা তামিমের ১০১ বলের ইনিংসে ছিল ১৫টি চারের মার।

এরপর দিনের বাকিটা সময় আর কোনো উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ। ধনঞ্জয় ডি সিলভাকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে সেঞ্চুরি পূরণ করেন শান্ত। ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট শতকের পথে ২৩৫টি বল খেলেন তিনি। মারেন ১২টি চার ও একটি ছক্কা।

দিন শেষে শান্ত ১২৬ ও মুমিনুল ৬৪ রানে অপরাজিত আছেন। লংকানদের হয়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন বিশ্ব ফার্নান্দো।

মুস্তাফিজের বলে রান চুরি করেছেন ব্র্যাভো : হর্ষ ভোগলে

ডেস্ক রিপোর্ট : ক্রিকেটকে বলা হয় ‘ভদ্রলোকের খেলা’। কিন্তু গতকাল সোমবার চেন্নাই সুপার কিংস বনাম রাজস্থান রয়্যালস ম্যাচের পর থেকে এই বক্তব্য মানতে রাজি নন ভারতের জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হর্ষ ভোগলে। চেন্নাইয়ের ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার ডোয়েন ব্র্যাভোর কান্ডকারখানা দেখে ক্ষিপ্ত এই ক্রিকেট বিশ্লেষক। তার মতে, রান চুরি করে ব্র্যাভো এই মহান খেলার অপমান করেছেন। একই সঙ্গে এই ঘটনার সঙ্গে তিনি ২০১৯ সালের আইপিএলে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ‘মানকড় আউট’ প্রসঙ্গও টানেন।

সোশ্যাল সাইটে ইতিমধ্যেই একটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে মুস্তাফিজুর রহমান বল হাত থেকে ছাড়ার আগেই ব্র্যাভো ‘পপিং ক্রিজ’ ছেড়ে প্রায় ৩ গজ এগিয়ে গিয়েছেন। এমন ঘটনা শুধু একবার নয়, সেই ম্যাচে ব্র্যাভো বার বার ঘটিয়েছেন। প্রথমবার এমন ঘটনা দেখে মাইক হাতে নিয়ে চিৎকার করে ওঠেন ভোগলে। ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় তিনি বলে ওঠেন, ‘ওহে ব্র্যাভো তুমি এমন কাজ করতে পারো না। এই খেলা তোমাকে সেই অনুমতি দেয় না।

ভোগলে আরও বলেন, ‘তুমি বোলার বল ছাড়ার আগেই প্রায় ৩ গজ এগিয়ে দাঁড়িয়েছ! একে তো রান চুরি করা বলে! এই জন্য আমি নিয়মের কথা বারবার বলি। ওকে তো রান আউট করে দেওয়া উচিত ছিল। আমার ধারণা আধুনিক যুগে খেলতে নামার আগে সাজঘরে ক্রিকেটের নিয়ম নিয়ে কেউ আলোচনা করে না। সেটা তো এই ম্যাচে বোঝাই গেল।’ উল্লেখ্য, বল ছাড়ার আগে এভাবে এগিয়ে যাওয়ায় ২০১৯ আইপিএলে জস বাটলারকে মানকড় আউট করেছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ : আজ বরিশালের প্রতিপক্ষ রাজশাহী

আব্দুল্লাহ আল হাসিব, বরিশালঃ আজ বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে চট্টগ্রাম-খুলনা এবং দ্বিতীয় ম্যাচে বরিশালের প্রতিপক্ষ রাজশাহী।

টুর্নামেন্টের প্রথম দুই ম্যাচের একটিতে জিতেছে খুলনা। অন্যদিকে এক ম্যাচে খেলে দাপুটে জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকার বিপক্ষে ৯ উইকেটের বিশাল জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম। মুশফিকের ঢাকাকে মাত্র ৮৮ রানে অলআউট করে দিয়েছিল মিঠুনের দল। মিরপুর স্টেডিয়ামে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ও জেমকন খুলনার মধ্যকার ম্যাচটি শুরু হবে দেড়টায়।

এদিকে প্রথম ম্যাচে ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে জয় পেলেও দ্বিতীয় ম্যাচে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর কাছে হেরে যায় সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর মুখোমুখি হবে ফরচুন বরিশাল। দুই ম্যাচের দুটিতেই জিতে দারুণ ফর্মে রয়েছে রাজশাহী। তাই তৃতীয় ম্যাচেও জিতে সেই ধারাটা অব্যাহত রাখতে পদ্মাপাড়ের দলটি। অন্যদিকে এক ম্যাচ খেলে হেরেছে বরিশাল। তাই টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম জয় খোঁজে মাঠে মাঠে নামবে তারা।

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী ও ফরচুন বরিশালের মধ্যকার ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৬ টায়।

ক্ষমা চেয়ে নতুন সংকটে সাকিব

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর ফলোয়ারসংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমতে শুরু করেছিল। কলকাতায় কালীপূজার অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় সমাজের একটি অংশের ব্যাপক সমালোচনার জেরে শেষ পর্যন্ত ‘ড্যামেজ কন্ট্রোল’-এর উদ্যোগ নেন সাকিব আল হাসান। ভিডিও বার্তায় ক্ষমা চান এই অলরাউন্ডার। কিন্তু তাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির সুর দেখেনি অনেকেই, বরং দেখছে বিভক্তি।

যিনি বা যাঁরা বিষয়টিকে এভাবে দেখছেন, তাঁদের মধ্যে আছেন সাকিবের নিজের পেশার লোকও। গতকাল দুপুরে সনাতন ধর্মাবলম্বী এক সাবেক ক্রিকেটার ফোনে ব্যক্ত করলেন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়াই, ‘সাকিবের বক্তব্য এটিই বোঝায় যে আমি আপনার (ইসলাম ধর্মাবলম্বীর) বাসায় যেতে পারব না। আর আপনারও আমার বাসায় আসতে বারণ।’ অর্থাৎ ভিডিও বার্তায় ক্ষমা চেয়ে নিজের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে গিয়ে যেন উল্টো সমাজের আরেক অংশের মনোবেদনার কারণ হয়েছেন সাকিব।

সব মিলিয়ে উভয়সংকটেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের পোস্টারবয়। কালীপূজার অনুষ্ঠানে যাওয়া নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিলেটের এক তরুণ রামদা উঁচিয়ে তাঁকে হত্যার হুমকি দেওয়ার পরদিন নিজের ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে ক্ষমা চাইতে আসেন। সেই তরুণ অবশ্য গ্রেপ্তার হয়েছেন। সাকিবের সঙ্গেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) জুড়ে দিয়েছে সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী। হোলি আর্টিজান ক্যাফেতে জঙ্গি হামলার পর বিদেশি কোচদের জন্য কিছু গানম্যান নিয়োগ করেছিল বিসিবি। তাঁদেরই একজনকে কাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের অনুশীলনে সার্বক্ষণিক সাকিবের সঙ্গে দেখা গেছে। এ বিষয়ে বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরীর ভাষ্য, ‘সতর্কতার অংশ হিসেবেই এটি করা হয়েছে। আশা করছি, এই ব্যবস্থাটি সাময়িকই হবে।’ সেই সঙ্গে তিনি আরো যোগ করেছেন, ‘উদ্বেগজনক ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পর আমরা তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়েছি। সংশ্লিষ্ট যারা, তাদেরকে বলেছি। তারাও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ব্যবস্থা নিচ্ছেন।’ ব্যবস্থা নিয়েছে বনানী থানাও। এর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আজম গতকাল সন্ধ্যায় জানিয়েছেন, ‘বনানীতে সাকিবের বাসার আশপাশে আমরা সাদা পোশাকের পুলিশ রেখেছি। যারা সার্বক্ষণিক নজরদারি করছে।’

জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করে আইসিসির দেওয়া এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে মাঠে ফেরার অপেক্ষায় থাকা সাকিব অবশ্য গত ৬ নভেম্বর ভোররাতে দেশে ফেরার পর থেকেই নিয়মিত খবরের শিরোনাম হচ্ছেন। বেশির ভাগই নেতিবাচক কারণে। রাত ২টায় দেশে ফিরেই সরকারের স্বাস্থ্যবিধি ভেঙে সকাল সাড়ে ১১টায় গুলশানের একটি সুপার শপ উদ্বোধনীতে যান। যেখানে ভিড়ের মধ্যেই বহু মানুষের সংস্পর্শে আসতে দেখা যায় তাঁকে। পরে করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়ার পর ফিটনেস পরীক্ষাও দেন। তাতে বিসিবির বেঁধে দেওয়া মানের কাছাকাছি থাকা সাকিব কলকাতায় যাওয়ার পথে সেলফি তুলতে আসা এক ভক্তের ফোন আছাড় মেরে ভেঙে আবার নেতিবাচক খবরের বিষয়বস্তু হন। নিজের ভিডিও বার্তায় অবশ্য আত্মপক্ষ সমর্থন করে জানিয়েছেন সেটি ইচ্ছাকৃত ছিল না। বরং সামাজিক দূরত্ব মানার চিন্তা থেকে সাবধানতা অবলম্বন করতে গিয়েই ঘটনাটি ঘটে গেছে দাবি করেছেন সাকিব। যদিও সংবাদমাধ্যমে এর আগেই ছাপা হওয়া ভুক্তভোগী সেক্টর মাহমুদ ও বেনাপোল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার বক্তব্য সাকিবের দাবির বিপক্ষেই গিয়েছে। আর সামাজিক দূরত্ব? সকালে সতর্ক সাকিবকে রাতেই পূজার অনুষ্ঠানে ভিড়ের মধ্যে দেখা গিয়েছে।

তবে সেসব নয়, সমাজের একটি অংশের মূল আপত্তির জায়গাটি তাঁর পূজার অনুষ্ঠান উদ্বোধন করতে যাওয়া নিয়ে। ভিডিও বার্তায় সাকিব দাবি করেছেন, সেটি পূজার অনুষ্ঠান ছিল না। অন্য কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নিতে গিয়ে ঘটনাচক্রে প্রদীপ জ্বালাতে হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু কিসের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন তিনি, সেটি ইউটিউব ভিডিওতে স্পষ্ট করেননি তিনি। পূজার অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রের কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি। যদিও কলকাতার বাংলা দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন গতকাল আমন্ত্রণপত্রের ছবিও ছেপেছে, যেখানে পূজার অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবেই সাকিবকে নিমন্ত্রণ করার কথা লেখা রয়েছে। তাই বিষয়টি নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েই যাচ্ছে। একই সঙ্গে সাকিব বিতর্ক চাপা দিতে চাইলেও সেটি মুখ তুলে তাকাচ্ছেই। ‘গর্বিত মুসলমান’ হিসেবে ক্ষমা চেয়েছেন বটে, কিন্তু তাতে যে মনঃক্ষুণ্ন অন্য ধর্মাবলম্বীরা। বাংলাদেশের মানুষের কাছে সাকিবের সর্বজনীনই হওয়ার কথা। ক্ষমা চাওয়ার ঘটনায় তাই প্রশ্ন উঠছে, তিনি কি তবে সবার নন?

সাকিবপত্নীর নীরব প্রতিবাদ

ডেস্ক রিপোর্ট : বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে ঘিরে গত কিছুদিন ধরে একের পর এক ঘটনা ঘটে চলছে। এই গ্রহের সেরা অল-রাউন্ডার এর আগেও নানারকম বিতর্কে জড়িয়েছেন। এবার এক বছর নিষেধাজ্ঞা শেষে দেশে ফেরার পর তাকে ঘিরে শুরু হয়েছে তিনটি বিতর্ক। দেশে ফেরার পরদিন করোনাবিধি না মেনে একটি সুপারশপ উদ্বোধন করা থেকে বিতর্কের শুরু।

এরপর কলকাতা যাওয়ার পথে বেনাপোলে সাকিবের হাত লেগে এক ভক্তের মোবাইল পড়ে যাওয়া নিয়ে বিতর্কের পালে আরও হাওয়া লাগে। বিতর্ক হিমালয়ের চূড়ায় পৌঁছায় সাকিবের কলকাতায় পূজা উদ্বোধনের খবরে। এজন্য তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘পূজা উদ্বোধন করিনি’ বলে ক্ষমাও চান সাকিব। এতগুলো বিষয় নিয়ে এতদিন নিশ্চুপ ছিলেন সাকিবপত্নী উম্মে আহমেদ শিশির।

আজ অবশেষে নীরবতা ভাঙলেন তিনি। সোশ্যাল সাইটে জানালেন নীরব প্রতিবাদ। শিশির তার ভেরিফায়েড পেইজে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। যাতে দেখা যাচ্ছে একটি জাহাজ সমুদ্রে ভাসছে। কিন্তু একটি মুঠোফোন বাঁকা করে ধরে এমনভাবে জাহাজটির ছবি নেওয়া হয়েছে, যাতে মনে হচ্ছে সেটি পানিতে ডুবে যাচ্ছে! ক্যাপশনে কিছুই লিখেননি শিশির। শুধুমাত্র একটি হাসির ইমোজি দিয়েছেন।

শিশিরের পোস্ট করা ছবির মর্মার্থ অনুধাবন করা কঠিন নয়। সোশ্যাল সাইট এখন হয়ে গেছে গুজবের আখড়া। একটি বিষয়কে পুরো উপস্থাপন না করে আংশিক এবং বিকৃত করে উপস্থাপনের মাধ্যমে গুজবের জন্ম নেয়। এই কারণে আসল ঘটনা থেকে যায় পর্দার আড়ালে।

মূল ঘটনা বিকৃত করে প্রকাশ করায় দেশে নিয়মিতই একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে। সোশ্যাল সাইট ব্যবহারকারীরা কমেন্টে লিখছেন, ‘চমৎকার প্রতিবাদ ভাবী’।

১৭ বছর পর ট্রফি জিতলো বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনাভাইরাসের কারণে ১০ মাসের বিরতি শেষে নেপালের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরেছিল বাংলাদেশ। দুই ম্যাচের সিরিজটি ১-০ ব্যবধানে জিতেছে স্বাগতিকরা। এর মাধ্যমে দীর্ঘ ১৭ বছর পর কোন ট্রফি জিতলো বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও নেপাল। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে স্বাগতিকরা। মাঠে দর্শক ফেরাও লাল-সবুজদের আক্রমণাত্মক হওয়ার বড় একটা কারণ।

উজ্জীবিত জামাল ভুঁইয়ার দল নেপালের গোল বারে বার বার আক্রমণ করে। তবে নির্ধারিত ৯০ মিনিটেও বাংলাদেশের কেউ সফলতার মুখ দেখেননি। নেপালও কয়েকবার বাংলাদেশের রক্ষণে ভীতি ছড়িয়েছে। তবে আশরাফুল ইসলাম রানাকে পরাস্ত করতে পারেনি কেউ।

ম্যাচের ৯৩ মিনিটে নেপালের নেয়া একটি শট বাংলাদেশের ক্রসবারে লেগে ফেরত এলে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে দর্শকরা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়।

এর আগে সর্বশেষ ২০০৩ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে সাফল্য পেয়েছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। এর পর এক যুগেরও বেশি সময় পার হলেও আর কোন শিরোপার দেখা পায়নি তারা।

সর্বশেষ হোম ভেন্যুতে ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে এই নেপালিদের কাছেই শিরোপা খুইয়েছে বাংলাদেশ। চলতি বছর বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সেমিফাইনালে বুরুন্ডির কাছে ৩-০ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছিল লাল সবুজের দল।

এটি ঠিক যে সাফ টুর্নামেন্ট কিংবা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ অনেক বেশী মর্যাদার। তবে ফিফা প্রীতি ম্যাচের এই সিরিজকেও খুব বেশি খাট করে দেখার সুযোগ নেই। কারণ দুই ম্যাচের এই সিরিজকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে উৎসর্গ করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। এ কারণে এই সিরিজের নামকরণ হয়েছে ‘মুজিব বর্ষ’ ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ সিরিজ। ফলে সিরিজ জয়ের মাধ্যমে একটি ঐতিহাসিক মুহুর্তের সাক্ষী হল জামাল ভুঁইয়ার দল।